ফেসবুক অ্যাকাউন্ট বন্ধের তালিকায় এবার বিশ্বে প্রথম হতে যাচ্ছে ঢাকা!

সারাবিশ্বে ভুয়া আইডি বা পেজ বন্ধ করতে অভিযান চালাচ্ছে ফেসবুক। বাংলাদেশেও এর প্রভাব পড়েছে। গত দ্ইু তিন ধরে দেশের অসংখ্য ফেসবুক ব্যবহাকারী ভুয়া আইডি বন্ধ হয়ে গেছে। এর আগে সক্রিয় ফেসবুক ব্যবহারকারীদের তালিকায় ঢাকা বিশ্বের দ্বিতীয় শহর হিসেবে স্বীকৃতি পায়। কিন্তু এরপরই ঘটে বিপত্তি। ভুয়া ফেসবুক ব্যবহারকারীদের ওপর নেমে আসে ফেসবুক কর্তৃপক্ষের খড়গ। আর এই সংখ্যা একেবারেই কম নয়। এখন তালিকায় প্রথম হতে যাচ্ছে ঢাকা শহর।

যারা এতোদিন এই জনপ্রিয় সামাজিক মাধ্যমটিতে নিজের নাম গোপন রেখে কিংবা ভুয়া নাম ব্যবহার করে আসছেন তাদের জন্যই দুঃসংবাদ হয়ে দেখা দিয়েছে ফেসবুক। এখনো যাদের ভুয়া আইডি বন্ধ হয়নি হঠ্যাৎ করেই তারাই এখন নিজেকে সামনে আনছেন। পরিচয় দিচ্ছেন আমিই সেই যিনি এতোদিন লুকিয়ে ছিলেন। তবে ফেসবুকের পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে, ভুয়া আইডি বন্ধ ও ভুয়া লাইক কমানোর উদ্যোগেরই অংশ এটি।

ফেসবুকের এই অভিযানে শুধুমাত্র ভুয়া আইডি বন্ধ হচ্ছে তা নয় অনেকে ক্ষেত্রে আসল আইডিও বন্ধ হচ্ছে। এ পর্যন্ত অন্তত বেশ কয়েকজন ফেসবুক ব্যবহারকারীর সন্ধান পাওয়া গেছে, যাদের আইডি ব্লকড হয়েছে। অথচ তাদের কেউই ছদ্মনাম ব্যবহার করেননি। তবে এবিষয়ে সরকারের ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম বলেন, এখানে আমাদের বলার কিছু নেই। এটা ফেসবুকের একেবারে নিজস্ব সিদ্ধান্ত। শুধু বাংলাদেশে না ফেসবুক সারা বিশ্বে ভুয়া আইডি বন্ধ করতে অভিযান চালাচ্ছে। এটি তাদের শুদ্ধিকরণ অভিযানের অংশ। তবে আমরা যখন তাদের কাছে বিষয়গুলো নিয়ে অনুরোধ করেছিলাম, তখন তারা ক্লু দিয়েছিল যে তারা শুদ্ধিকরণ অভিযান চালাবে।

এ প্রসঙ্গে প্রতিমন্ত্রী বলেন, আমরা কেবল ভিভিআইপিদের ফেক আইডি বন্ধের জন্য ফেসবুকের কাছে অনুরোধ জানিয়েছিলাম। এই সংখ্যা মাত্র ৬০টি। এই আইডিগুলোর বিপরীতে আমরা ইউআরএল পাঠিয়েছি। ফেসবুক সেগুলো ভেরিফায়েড করে দেবে। তাহলে ওইসব আইডির বিপরীতে যেসব ভুয়া আইডি আছে সেগুলো বন্ধ করা সম্ভব হবে।’

তারানা হালিম বলেন, আমি খোঁজ নিয়ে জানতে পেরেছি, ফেসবুক একই সঙ্গে বিশ্বের চারটি দেশে শুদ্ধিকরণ অভিযান শুরু করেছে। বাংলাদেশ ছাড়া বাকি তিনটি দেশ হলো ভারত, ইন্দোনেশিয়া ও পাকিস্তান।

বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নেটওয়ার্ক অপারেটর্স গ্রুপের (বিডিনগ) ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান সুমন আহমেদ সাবির বলেন, ফেসবুক এটা নিজ উদ্যোগে করছে নাকি বাংলাদেশ সরকারের অনুরোধে করছে তা পরিষ্কার নয়।
তিনি বলেন, ভুয়া লাইক কেনাবেচার জন্য ঢাকা এমনিতেই বিখ্যাত। এই ঢাকাকেই দ্বিতীয় অবস্থানে দেখিয়ে পরে আবার ভুয়া লাইকের জন্য শীর্ষে দেখাবে কিনা, তা নিয়ে আমি সন্দিহান। ফেসবুকে সবচেয়ে বেশি ব্যবহারকারী শহরের তালিকায় ঢাকার দ্বিতীয় অবস্থানে যাওয়ার বিষয়টিকেও ভালো চোখে দেখছেন না সুমন আহমেদ সাবির। তিনি মনে করেন, ‘ব্যাংকক যে শীর্ষ শহর (৩ কোটি সক্রিয় ব্যবহারকারী) নির্বাচিত হয়েছে, সেখানেও গলদ আছে। কোনো অবস্থাতেই ব্যাংককে ৩ কোটি সক্রিয় ব্যবহারকারী থাকতে পারে না। যেমন নেই ঢাকাতেও (২ কোটি ২০ লাখের বেশি)।

বাংলাদেশ সময় ১১৫৫ঘণ্টা, ১৮ এপ্রিল, ২০১৭

লেটেস্টবিডিনিউজ.কম/এস

শেয়ার করুন