ধর্ষক নাঈমের সঙ্গে সেলফি প্রসঙ্গে যা বললেন মৌসুমী

বনানীতে দুই তরুণী ধর্ষণের ঘটনা এখন টক অব দ্য কান্ট্রি। বিষয়টি নিয়ে বেশ সোচ্চার শোবিজ অঙ্গন তারকারাও। ন্যক্কারজনক এ ঘটনার সঠিক বিচারের দাবি জানিয়েছেন জনপ্রিয় অভিনেত্রী মৌসুমী হামিদ।

তিনি বলেন, জোর করে যৌন সম্পর্ক নাকি কোনো ব্যাপার না। এটা নাকি তারা প্রায়ই করে। এটা যে ধর্ষণ তারা জানেই না! এবার জানবে। এবারো যদি ওরা টাকার জোরে দু’দিন পর ছাড়া পায় আমার মনে হয় আমাদের দেশের সাধারণ জনগণ সবাইকে চিনে ফেলেছে। সবার ছবি লক্ষবার দেখেছে সবাই। সারাজীবন তো ঘরের মধ্যে থাকবে না। বের তো হতেই হবে। বাকিটা বুঝে নেন। তারা মিডিয়ার শক্তি সম্পর্কে জানে না। স্টপ রেপ।
মৌসুমী আরো বলেন, একটা খুনের শাস্তি মৃত্যদণ্ড না হলেও একটা ধর্ষণের শাস্তি অবশ্যই মৃত্যুদণ্ড হওয়া উচিত। প্রত্যেকটা ধর্ষণ মামলার বিচার যেন অবশ্যই এবং দ্রুত কার্যকর করা হয়। এটা পৃথিবীর জঘন্যতম অপরাধ তা বলার অপেক্ষা রাখে না।

এদিকে ২৮ মার্চ বনানীর রেইনট্রি হোটেলে ধর্ষণের ঘটনার অন্যতম আসামি নাঈম আশরাফের সঙ্গে মৌসুমীর একটি সেলফি অনলাইন দুনিয়ায় ভাইরাল হয়েছে।

নাঈমের সঙ্গে সম্পর্কের ব্যাপারে জানতে চাইলে মৌসুমী সংবাদমাধ্যমকে বললেন, ধর্ষক নাঈমের সঙ্গে ওই একবারই আমার দেখা হয়েছে। এর আগে অরিজিত সিং ও নেহা কাক্করের কনসার্টে পারফরম করার জন্য আমাকে সে বলেছিল। তবে যে কোনো কারণ বশত আমি কাজটি করিনি। সেসব নিয়ে আপাতত কিছু বলতে চাই না।

সেলফির ব্যাপারে আরটিভি অনলাইনকে তিনি বলেন, ২০১৫ সালে ভূমিকম্পে বিধ্বস্ত নেপালের সহযোগিতায় ‘কনসার্ট ফর নেপাল’ এ আমাদের এক সহকর্মীর আমন্ত্রণে রাজধানীর কলাবাগান মাঠে যাই। সেখানে কনসার্টে পার্থ বড়ুয়াসহ মিডিয়ার অনেক সেলিব্রেটি অংশ নেন। আমি জানতাম না আয়োজনটির সঙ্গে ধর্ষক নাঈম জড়িত। ছবিটি সে সময়ের। কারো চেহারা দেখে তো ভালো মন্দ বোঝার কোনো উপায় নেই। তবে সম্প্রতি ধর্ষকের সঙ্গে ওই ছবি নিয়ে অপপ্রচার করা নিয়ে আমি খুব বিব্রত। বৃহস্পতিবার মুঠোফোনে কথা চলাকালীন মৌসুমী জানালেন, তিনি রাজধানীর একটি হাসপাতালে রয়েছেন। সেখানে কয়েকদিন ধরে তার এক ঘনিষ্ঠ আত্মীয় চিকিৎসাধীন। আজ তার অপারেশন। এ নিয়ে খুব দুশ্চিন্তায় আছেন মৌসুমী। ফোন রাখার আগে বললেন, আমার ভাইয়ের জন্য দোয়া করবেন সবাই।   সূত্রঃ  আরটিভি অনলাইন

বাংলাদেশ সময়: ১৪২৩ ঘণ্টা, ১৮ মে ২০১৭,
লেটেস্টবিডিনিউজ.কম/টিএস

শেয়ার করুন