‘৩ মাসে ইরানের ইসলামি ব্যবস্থার পতন ঘটানোর পরিকল্পনা ছিল প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের’

Iran

ইরানের ইসলামি বিপ্লব আমেরিকার ওপর ঐতিহাসিক আঘাত হেনেছে বলে জানিয়েছেন, ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরানের সর্বোচ্চ নেতার সামরিক উপদেষ্টা ব্রিগেডিয়ার জেনারেল হোসেইন দেহকান। এই বিপ্লবের কারণে মার্কিন নেতৃত্বাধীন সাম্রাজ্যবাদের কবল থেকে মুক্তি পেয়েছে ইরানি জাতি।

তিনি আজ (বৃহস্পতিবার) ইরানের পশ্চিমাঞ্চলীয় হামেদান শহরে এক অনুষ্ঠানে এ কথা বলেন। দেহকান আরও বলেছেন, কুফরি শক্তির বিরুদ্ধে বিজয়ের পর ইরানি জাতি পশ্চিম এশিয়ায় মার্কিন উপস্থিতি এবং দখলদার ইসরাইলের প্রতি সমর্থন দেওয়াকে অবৈধ ও অন্যায় হিসেবে ঘোষণা করে। এই নীতি অনুসরণ করে এগিয়ে যাচ্ছে তেহরান।

হোসেইন দেহকান বলেন, আমেরিকা ভেবেছিল পরমাণু সমঝোতা থেকে বেরিয়ে যাওয়ার পর সর্বোচ্চ চাপ প্রয়োগের মাধ্যমে ইরানের অর্থনীতিকে তিন মাসের মধ্যে ধ্বংস করে দিতে সক্ষম হবে। তারা এও ভেবেছিল যে, অর্থনৈতিক ব্যবস্থা ভেঙে পড়ার ধারাবাহিকতায় গোটা দেশে অস্থিরতা ও বিশৃঙ্খলা দেখা দেবে এবং এর পরিণতিতে ইসলামি ব্যবস্থার পতন ঘটবে।

ইরানের সর্বোচ্চ নেতার উপদেষ্টা বলেন, আমেরিকা এসব পদক্ষেপ থেকে অনেক বড় শিক্ষা পেয়েছে। এরপরও তারা হয়তো ইরানের বিরুদ্ধে নতুন ফ্রন্ট তৈরির চেষ্টা করবে। কিন্তু তাদের এ ধরণের পদক্ষেপও ব্যর্থ হবে।
: পার্সুটডে