আসন্ন ‘কঠোর লকডাউনে’ রিকশা চলবে?

Rickshaw

বৈশ্বিক মহামারি করোনা সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় আগামী ১ থেকে ৭ জুলাই ‘খুবই কঠোর’ অবস্থানে যাচ্ছে বাংলাদেশ সরকার। এসময়ে রিকশা চলবে কিনা-তা প্রজ্ঞাপনের মাধ্যমে জানিয়েছে দেওয়া হবে বলে সরকারের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।

সোমবার ২৮ জুন) মন্ত্রিসভা বৈঠক শেষে সচিবালয়ে ব্রিফিংয়ে এ তথ্য জানিয়েছেন মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম।

মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, ১ জুলাই থেকে স্ট্রিক্ট রেস্ট্রিকশনে যাচ্ছি। বাস্তবায়ন কৌশল এর আগে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সভাপতিত্বে সভা হয়েছে। আগামী মঙ্গলবার (২৯ জুন) বা বুধবার (৩০ জুন) বসে নির্ধারণ করবো।

তিনি বলেন, আর্মি, বিজিবি, ব্যাটালিয়ন পুলিশ টহলে থাকবে। মানুষ যেনো কোনোভাবেই ঘর থেকে বের না হতে পারে তা মনিটর করবে। সশস্ত্র বাহিনী টহল দেবে। কেউ কথা না শুনলে তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া তাদের কাজের মধ্যে থাকবে। রিকশা চলবে কিনা, আদেশে বলে দেওয়া হবে।

করোনা সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় সোমবার থেকে তিন দিনের সীমিত পরিসরে লকডাউনে প্রয়োজনীয় সংখ্যক জনবল নিয়ে সরকারি-বেসরকারি অফিস খোলা রাখা হয়। এ সময়ে গণপরিবহন বন্ধ রেখে সড়কে পণ্যবাহী পরিবহন ও রিকশা চলার অনুমতি দিয়েছে সরকার। তবে রিকশার কারণে লকডাউনের মধ্যে সড়কে বিভিন্ন স্থানে যানজট তৈরি হয়েছে।

কঠোর লকডাউনে সরকারি-বেসরকারি অফিসও বন্ধ থাকবে বলে সরকারের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে। এসময় মুভমেন্ট পাসও থাকবে না।