এশিয়ার প্রথম ভাসমান সিনেমা হল কাশ্মীরে

ডাল লেকে শুরু হল ভাসমান থিয়েটার। যা কিনা এশিয়ার মধ্যে এই প্রথম। এবার ডাল লেকে বসেই সিনেমা দেখতে পাবেন পর্যটকরা।

এশিয়ার প্রথম ভাসমান সিনেমা হল কাশ্মীরে
কাশ্মীরে এশিয়ার প্রথম ভাসমান সিনেমা হল - ছবি:সৌজন্যে সংবাদ প্রতিদিন

ভাবুন তো একবার। এক পাশে পাহাড়। মাথার উপর খোলা আকাশ। ডাল লেকের টলমল জলে দুলতে থাকা শিকারা। পাশে রয়েছেন প্রিয়মানুষটি। আর সামনে বড় পর্দায় পছন্দসই বলিউড ছবি! এবার থেকে কাশ্মীরে গেলেই তা চাক্ষুষ করা যাবে।

গত শুক্রবার ডাল লেকে শুরু হল ভাসমান থিয়েটার। যা কিনা এশিয়ার মধ্যে এই প্রথম। এবার ডাল লেকে বসেই সিনেমা দেখতে পাবেন পর্যটকরা। লেজার শো এবং স্থানীয় নৃত্যশিল্পীদের নাচের মধ্যে দিয়েই সূচনা হল এই ভাসমান সিনেমা হলের। জম্মু ও কাশ্মীরের মুখ্য সচিব অরুণ কুমার মেহতার কথায়, ”প্রথম থেকেই শ্রীনগরের এই ডাল লেক পর্যটকদের আকর্ষণের কেন্দ্রবিন্দু। পর্যটকরা কাশ্মীরে ঘুরতে এলে অবশ্যই ডাল লেকে শিকারা ভ্রমণ করেন। তাই এই ভ্রমণকে আরও বেশি আকর্ষণীয় করে তুলতে এই ধরনের উদ্যোগ। আশা করা যায়, এর ফলে কাশ্মীরের পর্যটন শিল্প উপকৃত হবে।”

এদিন বলিউডের জনপ্রিয় ছবি ‘কাশ্মীর কি কলি’ দেখানো হয়। শাম্মি কাপুর ও শর্মিলা ঠাকুর অভিনীত এই ছবির অনেকাংশই শুটিং হয়েছিল কাশ্মীরে। ডাল লেকের নেহরু পার্কে শুটিং হওয়া এই ছবির ‘দিওয়ানা হুয়া বাদল’ গানটিও জনপ্রিয় হয়।

এক সময় সিনেমার শুটিংয়ের ক্ষেত্রে কাশ্মীর ছিল বলিউডের প্রথম পছন্দ। তবে জঙ্গি কার্যকলাপে কাশ্মীর অগ্নিগর্ভ হওয়ার পর থেকেই শুটিং বন্ধ হয়ে যায়। এমনকী, পর্যটন শিল্পেও প্রভাব পড়ে। তবে কাশ্মীর এখন আগের থেকে শান্ত। গত কয়েক বছরে কাশ্মীরে সিনেমার শুটিংও শুরু হয়েছে। স্থানীয়দের কথায়, ডাল লেকের এই ভাসমান থিয়েটার পর্যটকদের কাছে জনপ্রিয় হবে।

সংবাদ সূত্রঃ সংবাদ প্রতিদিন