‘জেলখানায় সাঈদীকে আদর-আপ্যায়নের কোনো মানে হয় না’ :ড. মুরাদ

'জেলখানায় সাঈদীকে আদর-আপ্যায়নের কোনো মানে হয় না' :ড. মুরাদ
তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী ড. মুরাদ হাসান

তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী মুরাদ হাসান জেলখানায় দণ্ডপ্রাপ্ত জামায়াত নেতা দেলোয়ার হোসাইন সাঈদীকে আদর আপ্যায়ন করার কোনো মানে হয় না বলে মন্তব্য করেছেন। তিনি বলেন, তাকে এভাবে বছরের পর বছর কারাগারে রেখে, ভরণপোষণ দিয়ে, আদর আপ্যায়ন করে রাখার মানেটা কি? এই জিনিসটাকে আমি কোনোভাবেই সমর্থন করতে পারি না।

গতকাল বুধবার মন্ত্রণালয়ের নিজ অফিসকক্ষে সাংবাদিকদের সাথে সমসাময়িক বিষয় নিয়ে মতবিনিময়কালে এসব কথা বলেন।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, দেলোয়ার হোসাইন সাঈদীর মতো একজন কুখ্যাত রাজাকার, তার যুদ্ধকালীন যে ইতিহাস সেটা সবাই জানি। যিনি একের পর এক অস্থিতিশীল ঘটনা ঘটনার জন্য দায়ী। তাদের সমর্থকেরা জামায়াতে ইসলামী, ছাত্র শিবির বা আরেকটা ভার্সন আছে হেফাজতে ইসলাম। তবে সবাই না, সবার কথা বলছি না, উগ্রপন্থী যারা তাদের কথা বলছি।

খালেদা জিয়ার সুস্থতা কামনা করে ড. মুরাদ বলেন, খালেদা জিয়ার বয়স হয়েছে। আর এ বয়সে শারীরিক কিছু জটিলতা থেকে থাকে। এ ছাড়া তিনি এর আগে তার সমস্যার জন্য বিদেশে চিকিৎসা করিয়েছেন। তবে তার প্রতি আমাদের সমবেদনা রয়েছে। দেশে তার সবোর্চ্চ চিকিৎসা হচ্ছে। সরকার তার সর্বোচ্চ চিকিৎসা নিশ্চিত করছে। বিদেশে চিকিৎসার বিষয়টি আইন মন্ত্রণালয় বিশ্লেষণ করছে।

গণপরিবহনে শিক্ষার্থীদের হাফ ভাড়ার দাবির প্রসঙ্গে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে ডা. মুরাদ বলেন, গণপরিবহনে ছাত্র -ছাত্রীদের সাথে অসৌজ্যনমূলক আচরণ দুঃখজনক। এরকম আচরণ কাম্য নয়। নারী বা মেয়ে যেই হোক তাদের সাথে অসৌজ্যনমূলক আচরণ যারাই করেছে তারা মানসিক বিকারগ্রস্ত এবং মানসিকভাবে অসুস্থ।

গণপরিহনের ভাড়া নিয়ে শিক্ষার্থীদের আন্দোলন যৌক্তিক উল্লেখ করে তিনি বলেন, পৃথিবীর সবদেশের গণপরিবহনে শিক্ষার্থীদের জন্য বিশেষ সুবিধা দিয়ে থাকে এমনকি আমাদের পার্শ্ববর্তী দেশ ভারতেও রয়েছে। শিক্ষার্থীদের দাবি মেনে নেওয়ার জন্য সংশ্লিষ্টদের প্রতি দাবি জানান প্রতিমন্ত্রী।