নারায়ণগঞ্জে চলন্ত বাসে দল বেঁধে গৃহবধূকে ধর্ষণ

নারায়ণগঞ্জে চলন্ত বাসে দল বেঁধে গৃহবধূকে ধর্ষণ
ইন্টারনেট সংগৃহীত ছবি

নারায়ণগঞ্জের বন্দরে গৃহবধূকে (২১) দল বেঁধে চলন্ত বাসে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। বাসটির চালক, হেলপার ও কন্ডাকটরকে এ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গত রবিবার (১৯ ডিসেম্বর) রাতে জরুরি সেবা ৯৯৯ থেকে প্রাপ্ত সংবাদের ভিত্তিতে বন্দর থানার পুলিশ ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের মদনপুরের জাহিন গার্মেন্টের সামনে থেকে ওই ৩জনকে আটক করতে সক্ষম হয়।

আটকরা হলো- রূপগঞ্জ থানার যাত্রামুড়া এলাকার মানিক মিয়ার বাড়ির ভাড়াটিয়া হাছেন আলী মিয়ার ছেলে বাসচালক নুরুল হক (২১), ঢাকার খিলগাঁও থানার মীরেরটেক এলাকার আল আমিন মিয়ার ছেলে বাসের কন্ডাকটর শান্ত (১৬) ও রূপগঞ্জ থানার চনপাড়া এলাকার আবু হোসেন মিয়ার ছেলে বাসের হেলপার বুলেট (১৪)।

অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, গত ১৯ ডিসেম্বর রবিবার রাত ১০টায় ওই গৃহবধূ রূপগঞ্জের গাউছিয়া যাওয়ার উদ্দেশে ঢাকার যাত্রাবাড়ী থেকে সায়েদাবাদ টু গাউছিয়া মুক্তিযোদ্ধা পরিবহনে ওঠেন। বাসটি চিটাগং রোডে আসার পর সব যাত্রী বাস থেকে নেমে গেলে ওই গৃহবধূ একাই রয়ে যান। পরে বাসটি বন্দর থানার ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের জাহিন গার্মেন্টের সামনে এলে বাসচালক, কন্ডাকটর ও হেলপার বাসের মধ্যে উচ্চৈঃস্বরে গান বাজিয়ে বাসযাত্রী গৃহবধূর ইচ্ছার বিরুদ্ধে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। ওই সময় ধর্ষিতা কৌশলে প্রস্রাব করার কথা বলে বাস থেকে নেমে জরুরি সেবা ৯৯৯-এ ফোন দিয়ে বিষয়টি পুলিশকে অবগত করেন। পুলিশ সংবাদ পেয়ে তাৎক্ষণিক ঘটনাস্থলে এসে তিন ধর্ষককে আটক করতে সক্ষম হয়। এ ব্যাপারে বন্দর থানার অফিসার ইনচার্জ দীপক চন্দ্র সাহা জানান, ৯৯৯-এ জরুরি সেবা মাধ্যমে সংবাদ পেয়ে তিন ধর্ষককে আটক করতে সক্ষম হয়েছি। সেই সঙ্গে ভিকটিমকে উদ্ধার করে ডাক্তারি পরীক্ষার পর রবিবার সকালে ২২ ধারায় আদালতে প্রেরণ করেছি। দুপুরে আটককৃত তিন ধর্ষককে সাত দিনের রিমান্ডের আবেদন জানিয়ে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।