৮ জেলায় ৩ লাখ লিটার সয়াবিন তেল জব্দ

৮ জেলায় ৩ লাখ লিটার সয়াবিন তেল জব্দ
প্রতীকী ছবি

ভ্রাম্যমাণ আদালত দেশের ৪ জেলায় জব্দ করেছে ২ লাখ ৯৭ হাজার ৬২৪ লিটার সয়াবিন তেল। গতকাল বৃহস্পতিবার (১২ মে) সকাল থেকে খুলনা, সিরাজগঞ্জ, ঝিনাইদহ ও কিশোরঞ্জের জেলার বিভিন্ন গুদামে ভ্রাম্যমাণ আদালত অভিযান চালিয়ে এসব তেল জব্দ করেন।

ভ্রাম্যমাণ আদালত খুলনায় তিনটি প্রতিষ্ঠানে অভিযান চালিয়ে ৭৩ হাজার ৩২ লিটার সয়াবিন তেল ও ১ লাখ ৬৩ হাজার ৬০৮ লিটার পাম ওয়েল জব্দ করেছে। ওই তিনটি প্রতিষ্ঠানকে ১ লাখ ৬০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। এ অভিযান পরিচালনা করেন খুলনা জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট দেবাশীষ বসাক।

অপরদিকে সিরাজগঞ্জের সলঙ্গা বাজারে অভিযান চালিয়ে জব্দ করা হয়েছে গুদামে মজুদ রাখা ৩৭ হাজার লিটার সয়াবিন তেল। এ ঘটনায় ওই গুদাম মালিককে পঞ্চাশ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। এ জরিমানা করেন জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতর সিরাজগঞ্জের সহকারী পরিচালক মাহমুদ হাসান রনি।

ভ্রাম্যমাণ আদালত ঝিনাইদহ সূত্রে জানা যায়, অবৈধভাবে ঝিনাইদহের কালীগঞ্জে মজুদ রাখা ২০ হাজার ৬০০ লিটার সয়াবিন তেল জব্দ করেছে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতর। একইসঙ্গে ওই ব্যবসায়ীকে জরিমানা করা হয়েছে ১৫ হাজার টাকা। কালীগঞ্জ শহরের বিহারী মোড় এলাকায় আর এস অয়েল মিলসে অভিযান চালিয়ে এ তেল জব্দ করা হয়।

নীলফামারীর কিশোরগঞ্জ উপজেলা সূত্রে জানা যায়, উপজেলায় অবৈধভাবে মজুদ করা ৪ হাজার ২৪লিটার সয়াবিন তেল জব্দ করা হয়েছে। জাতীয় ভোক্তা অধিকার ও সংরক্ষণ অধিদফতর নীলফামারী জেলা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক সামসুল আলমের নেতৃত্বে ভ্রাম্যমাণ আদালত এ তেল জব্দ করেন।

মাদারীপুর সূত্রে জানা যায়, মাদারীপুরের সিফাত এন্টারপ্রাইজ এর মালিক মফিজুল ইসলাম ঈদের আগে সয়াবিন তেল মজুদ করে রেখেছেন বলে অভিযোগ উঠে। তিনি সয়াবিন তেল নির্ধারিত দামের চেয়ে খুচরা দোকানীদের নিকট বেশি দামে বিক্রি শুরু করেন। প্রতিষ্ঠানটির ব্যবস্থাপক বিল্লাল ফকির তাঁতীবাড়ী বাজারে গিয়ে দোকানীদের কাছে ৭৬০ টাকা মূল্যের ৫ লিটারের সয়াবিন তেলের বোতল ৯৩০ টাকায় বিক্রি শুরু করেন। পরে দোকানীরা বিল্লালকে আটক করে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতরের খবর দিলে ভ্যানে থাকা ৬৭২ লিটার সয়াবিন তেল জব্দ করেন। এই সময় অধিক মূল্যে সয়াবিন তেল বিক্রি করার অভিযোগে রিফাত এন্টারপ্রাইজের মালিক মফিজুল ইসলামকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি সূত্রে জানা যায়, সুনামগঞ্জের দোয়ারাবাজার উপজেলার আমবাড়ি বাজারের ছয়টি ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠান থেকে ৮ হাজার লিটার সয়াবিন তেল জব্দ করা হয়েছে। এ ঘটনায় ১ লাখ ৩০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। অভিযান পরিচালনা করেন জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতরের সুনামগঞ্জ জেলা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক মো. শফিকুল ইসলাম।

কুমিল্লা প্রতিনিধি সূত্রে জানা যায়, কুমিল্লা নগরীর চকবাজার এলাকা থেকে ৮ হাজার ৩৬৪ লিটার তেল জব্দ করা হয়েছে। পরে এসব তেল পূর্ব মূল্যে স্থানীয় খুচরা দোকানীদের কাছে বিক্রি করা হয়। এ সময় দুই প্রতিষ্ঠানকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতরের সহকারী পরিচালক মো. আছাদুল ইসলাম এ অভিযান পরিচালনা করেন।

ঈশ্বরগঞ্জ (ময়মনসিংহ) সূত্রে জানা যায়, ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলার রায়ের বাজারের মেসার্স সেলিম ওয়েল মিল ও আঠারোবাড়ি ওয়েল মিলে অধিক মূল্যে সয়াবিন তেল বিক্রি ও ২ হাজার লিটার তেল মজুদ রাখার অপরাধে দুই মিল মালিককে জরিমানা করা হয়েছে। জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতর এ জরিমানা করে। জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতর ময়মনসিংহ বিভাগীয় কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক নিশাত মেহের এই অভিযান পরিচালনা করেন।