৮২ বছরের রেকর্ড ভাঙলেন ইয়াসির শাহ

ক্রিকেট বিশ্বে প্রথম দ্রুততম বোলার হিসেবে টেস্টে ২০০ উইকেটের ঘরে পা রাখলেন পাকিস্তানের ইয়াসির শাহ। নিজের ৩৩তম টেস্ট ম্যাচে এমন কীর্তি গড়েন ৩২ বছর বয়সী এ লেগস্পিনার। যা টেস্ট ক্রিকেটর ইতিহাসে সবচেয়ে কম ম্যাচ খেলে সেরা অর্জন। ফলে ইয়াসিরের রেকর্ডের কাছেও নেই কোনো বোলার। অন্যদিকে ভেঙে দিলেন ৮২ বছরের পুরনো রেকর্ড।

দুবাইয়ে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে চলমান শেষ টেস্টের দ্বিতীয় ইনিংসে এ রেকর্ডটি গড়েন। নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে প্রথম ইনিংসে ৩ নেওয়ার পর, দ্বিতীয় ইনিংসে ২ উইকেট নিয়ে সেই লক্ষ্য পূরণ করলেন ইয়াসির। এ ম্যাচের আগে তার দখলে ছিল ৯৫টি উইকেট। দ্বিতীয় ইনিংসে সোমারাভিলাকে বিলাল আসিফের ক্যাচ বানিয়ে তিনি আজ বিশ্ব রেকর্ড গড়েন।

টেস্টে দ্রুততম ২০০ উইকেট নেওয়ার রেকর্ড রয়েছে নিউজিল্যান্ডের ডুনেডিনে জন্মগ্রহণকারী বিখ্যাত অস্ট্রেলিয়ার ক্ল্যারি গ্রিমেটের দখলে। ৩৬ টেস্টে ২০০ উইকেট নিয়েছিলেন গ্রিমেট। ১৯২৫ থেকে ১৯৩৬ সাল পর্যন্ত খেলেছিলেন এই লেগস্পিনার। অবসর নেওয়ার আগে ৩৭ টেস্টে ২১৬ উইকেট নেন গ্রিমেট। ৮২ বছর পর আজ ইয়াসির ভেঙে দিলেন সেই পুরনো রেকর্ডটিও।

উল্লেখ্য, শৈশবে গ্রিমেট ওয়েলিংটনে ক্লাব ক্রিকেটের পক্ষে খেলেন। ১৭ বছর বয়সে ওয়েলিংটনের পক্ষে প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে অভিষেক ঘটে তার। ওই সময়ে নিউজিল্যান্ড টেস্ট ক্রিকেটভূক্ত দলের মর্যাদাপ্রাপ্ত হয়নি। ফলে, ১৯১৪ সালে প্রতিবেশী অস্ট্রেলিয়ায় অভিবাসিত হন। সেখানে তিন বছর সিডনির ক্লাব ক্রিকেটে অংশ নেন। আর সেখানে সফল পান তিনি।

৩৮ টেস্টে ২০০ উইকেট নেওয়ার রেকর্ড আছে অস্ট্রেলিয়ার প্রাক্তন পেসার ডেনিস লিলি ও পাকিস্তানের প্রাক্তন পেসার ওয়াকার ইউনিসের।

ইয়াসির শাহ ১০০ উইকেট শিকারীর তালিকায় ছিরেন দ্বিতীয়তম। ১৭তম ম্যাচে তিনি ১০০ উইকেট শিকার করেন। তবে একটি জায়গায় দারুণ মিল এই স্পিনারের। ১৭তম ম্যাচে যখন তিনি মাঠে নেমেছিলেন তখন তার প্রয়েজন ছিল ৫ উইকেটের। কাকতালীয়ভাবে নিজের ৩৩তম ম্যাচেও একই অবস্থা। মাঠে নামার আগে এই ম্যাচেও দ্রুততম ২০০ উইকেট শিকারের জন্য প্রয়োজন ছিল ৫ উইকেট।

অন্যদিকে ক্যারিয়ারের প্রথম ৯ ম্যাচে ৫০ উইকেট শিকার করে নিজের ঝুলিতে জমা করেন ৫০ উেইকেট। যা পাকিস্তানি ক্রিকেটারদের মধ্যে দ্রুততম।

লেটেস্টবিডিনিউজ.কম/কেএস