আফ্রিকার যে দেশের ৩টি রাজধানী

কানিজ ফাতেমা তিসা

পরিবারের সঙ্গে আফ্রিকার দেশ সোয়াজিল্যান্ডে থাকা হলেও ভালো ডাক্তার দেখাতে, আবার ভালো শপিং করতে প্রায়ই সাউথ আফ্রিকা যেতে হয়। অনেক বছর সোয়াজিল্যান্ড এ থাকার সুবাদে আমি সাউথ আফ্রিকার অনেক শহর ঘুরেছি। তার ভিতর একটি আমার অনেক বেশি প্রিয় তা হল ডারবান (Durban), যা মিনি ইন্ডিয়া হিসেবে পরিচিত।

আর সব থেকে যে জিনিসটা বেশি মজা লাগে তা হল,সাউথ আফ্রিকা হল পৃথিবীর একমাত্র দেশ যার কিনা ৩টি রাজধানী। হুমম, ঠিক তাই। প্রথম রাজধানী কেপটাউন, দ্বিতীয় রাজধানী পিটোরিয়া ও তৃতীয় রাজধানী ব্লোমফোন্টেইন।

সাউথ আফ্রিকাতে যেদিন প্রথম আসি। এয়ারপোর্টে একটি লেখাকে আমার মনে খুব ধরেছিল তা হল “Unspoiled Africa”, আসলেই তাই। সবকিছু দারুণ পারফেক্ট।

নিয়ে কিছু গল্প করব। এটাকে ‘মিনি ইন্ডিয়া’ বলার কারণ এখানে ৮০ শতাংশের বেশি ভারতীয়রা থাকে। এখানে এলে মনে হয় সবাই খুব আপন। এখানকার মানুষদের সঙ্গে কলকাতার মানুষদের একটা মিল আছে, এরা খুবই মিষ্টভাষী। প্রথম প্রথম আমি যখন ডারবান এ যেতাম, এদের আচরণে কিছুটা অস্বস্তিতে থাকতাম। যেখানেই যেতাম, সব মেয়েরা ‘মাই লাভ’ অথবা ‘ডার্লিং ‘ বলে সম্মোধন করে।

শপিং মলে গেলাম, কাউকে কিছু জিজ্ঞাসা করব অথবা কারো সঙ্গে ধাক্কা লাগলেও বলবে, ‘সরি মাই লাভ’ আর এটা বলেই হেসে ফেলবে। তখনি দেখা যায় তাদের অনেকের দাঁতের সোনার কারুকার্য। এখানে সবাই দাঁতে সোনা দিয়ে ডিজাইন করে। অনেক রকম দাঁতের ডিজাইন থাকে এদের।

শুনেছি ৫/৬ জেনারেশন আগে ইন্ডিয়া থেকে অনেক কুলি আনা হয়েছিল এখানে। তাদেরই বংশধর রয়ে গেছে এখানে। আবার কিছু মানুষ আঁখ চাষের কাজ করতেও এসেছিল ইন্ডিয়া থেকে। আবার কিছু শিক্ষিত মানুষও এসেছিল।

এদের ভিতর এমনও মানুষ আছেন যারা নিজেকে ইন্ডিয়ান বলবে, অথচ বাড়ি কোথায় জানতে চাইলে বলতেও পারে ঢাকা। এমন মানুষ ডারবান এ অনেক যারা কোনো দিন ইন্ডিয়া যায়নি, তবে এরা ইন্ডিয়ান।

কিন্তু মজার ব্যাপার হল সবাই হিন্দি বলতে চেষ্টা করে,তবে খুব ভালো হিন্দি বলতে পারা মানুষ খুবই কম। হিন্দি সিনেমা দেখে তারা হিন্দি শিখেছে। তাই সবার সাথে কথা বলা যায়, আপন লাগে বেশি।

ডারবান এ অনেক ইন্ডিয়ান সিনেমার শুটিং হয়েছে। রেস, জান্নাত-২ সিনেমার পুরোটাই ডারবান এ চিত্রায়িত হয়েছে। আরও নাম না জানা ইমরান হাশমির অনেক সিনেমা এখানে হয়েছে।

ডারবানের সমুদ্রের ধারে এখনো হাতে টানা রিকশা আছে। এসব নানা কারণে ডারবানকে ‘মিনি ইন্ডিয়া’ বলে ডাকা হয় হয়তো।

সাউথ আফ্রিকায় নানা ধর্মের মানুষ বাস করে। অনেক হিন্দু,মুসলিম, বৌদ্ধ আছে এখানে। তাই অনেক মসজিদ ও মন্দির রয়েছে। সেগুলোর কিছু খুব পুরাতন।

এখানকার মানুষ খুব ভোজন রসিক। এদের স্পেশাল খাবার গুলোর ভেতরে ‘বানি চাও’ একটা, এটা আর কিছুই না শুধু ব্রেড এর ভিতর চিকেন, অথবা বিফ কারি রেখে খায় বিরিয়ানি এরা খুব পছন্দ করে, আর বিরিয়ানিতে ডাল দেয়।

কর্ম ও জীবনের টানে সাউথ আফ্রিকাতে অনেক বাংলাদেশী বাস করে। যারা বৈধ-অবৈধভাবে এখানে জীবন-জীবিকা নিয়ে ব্যস্ত।

পুরো সাউথ আফ্রিকার আবহাওয়া এতো ভালো যে, সারা বছর এখানে টুরিস্টরা ভিড় জমায়। কারণ হলিডেজ এর জন্য এমন সুন্দর ওয়েদার হয়তো কমই পাওয়া যায়। এখানে ঘুরে বেড়ানোর জন্য অনেক সুন্দর সুন্দ সুন্দর জায়গা আছে যা আসলেই সুন্দর।

বাংলাদেশ সময়: ১৯২৬ ঘণ্টা, ২২ আগস্ট ২০১৭
লেটেস্টবিডিনিউজ.কম/এসএফ