ঘূর্ণিঝড় আম্পান তাণ্ডবে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতির আশঙ্কা

india

ভারতে প্রাণঘাতী করোনার পর এবার ঘূর্ণিঝড় আম্পানের তাণ্ডবে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতির আশঙ্কা সৃষ্টি হয়েছে। আজ (বুধবার) বিকেলে পশ্চিমবঙ্গের রাজধানী কোলকাতাসহ রাজ্যের বিভিন্নস্থানে গাছাপালা ও বিদ্যুতের খুঁটি উপড়ে পড়েছে। পশ্চিমবঙ্গের আলীপুর আবহাওয়া দফতর জানিয়েছে, সন্ধে ছ’টা নাগাদ কলকাতায় ঝড়ের গতিবেগ ছিল ১১২ কিলোমিটার। কোলকাতা পুলিশ সূত্রে খবর, শহরে কমপক্ষে ৩০টি জায়গায় গাছ ভেঙে পড়েছে। এছাড়া একাধিক পোস্ট ভেঙে পড়ার খবরও পাওয়া গিয়েছে। ঘূর্ণিঝড় আম্পানের তাণ্ডবে হাওড়ার শালিমারে এক কিশোরীর মাথায় টিন পড়ে মৃত্যু হয়েছে বলে জানা গিয়েছে।

পশ্চিমবঙ্গের দীঘায় প্রবল ঝড়ের মধ্যে পানির ট্যাঙ্ক ও কাকদ্বীপে বাড়ির চাল উড়ে গেছে। শ্রীরামপুরে বাড়ির ওপরে গাছ পড়ে ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। পরিস্থিতি সামাল দিতে বিভিন্ন জেলায় বিদ্যুৎ পরিসেবা বন্ধ রাখা হয়েছে। অতিপ্রয়োজনীয় ক্ষেত্র ছাড়া বিদ্যুৎ বন্ধের নির্দেশ দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। বিশেষকরে পূর্ব মেদিনীপুর, উত্তর ও দক্ষিণ ২৪ পরগনা ও কোলকাতার বিস্তীর্ণ এলাকায় ওই ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আজ (বুধবার) রাজ্য সচিবালয় নবান্নে রাজ্যের এমার্জেন্সি অপারেশন সেন্টার থেকে ঘূর্ণিঝড় আম্পান পর্যবেক্ষণ করছেন ও প্রয়োজনীয় নির্দেশ দিচ্ছেন।

ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে উড়িষ্যার পারাদ্বীপ এবং পশ্চিমবঙ্গের দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলায় প্রবল ঝোড়ো হাওয়া বয়ে যাচ্ছে এবং সঙ্গে একনাগাড়ে ভারী বৃষ্টি হচ্ছে। পশ্চিমবঙ্গের সাতটি জেলা ঘূর্ণিঝড়ের প্রত্যক্ষ প্রভাবের সম্মুখীন হতে পারে। করোনাভাইরাস জনিত মহামারীর মধ্যে আম্পানের তাণ্ডবে প্রবল ক্ষয়ক্ষতির আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। পশ্চিমবঙ্গের উপকূলবর্তী এলাকাগুলো থেকে ৫০ হাজারেরও বেশি মানুষজনকে নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

এদিকে, উড়িষ্যার বালাসোর জেলায় ঘূর্ণিঝড় আম্পান তাণ্ডব শুরু হয়েছে। সেখানে প্রবল বৃষ্টি ও ঝড়ো হাওয়া হচ্ছে। বালাসোরের ভোগারাই ব্লকে একটি বিদ্যুতের খুঁটি ভেঙে পড়ে এক নারীর ওপরে। ঘটনাস্থলেই তাঁর মৃত্যু হয়। বাড়ি থেকে কোনও কাজে বাইরে বেরিয়েছিলেন ওই নারী। বালাসোরের খাইরা ব্লকে ইতোমধ্যেই একাধিক কাঁচা বাড়ি ভেঙে পড়েছে। জয়পুর জেলার বারি ব্লকেও শুরু হয়েছে প্রবল বৃষ্টি ও ঝড়। বিদ্যুতের বহু খুঁটি, গাছ উপড়ে পড়ে অনেক জায়গায় যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে।