বুবলীর সঙ্গে বিচ্ছেদ : শাকিব খান

ছবি: সংগৃহীত

অপু বিশ্বাসের পর শবনম বুবলীর সন্তান প্রকাশ্য আসার পর থেকেই সমালোচনার শীর্ষে চিত্রনায়ক শাকিব খান। কিন্তু বুবলীর গোপন বিয়ে ও সন্তানের খবর প্রকাশ্যে আসার পর এই জুটির জটিলতা সেখানেই শেষ হতে পারত। কিন্তু হয়নি। সমীকরণ মেলানোর চেষ্টা করা হচ্ছে শাকিব-বুবলীর সম্পর্কের।

যদিও গণমাধ্যমে সেই খবর অস্বীকার করেছেন শবনম বুবলী। তবে এবার বিচ্ছেদ প্রসঙ্গে ইঙ্গিতপূর্ণ মন্তব্য করেছেন শাকিব খান।

শাকিব খান ও বুবলীর বৈবাহিক সম্পর্ক অটুট আছে নাকি বিবাহবিচ্ছেদ ঘটেছে- এমন প্রশ্ন বুবলী তাদের সন্তান নিয়ে আত্মপ্রকাশের পর থেকে সাধারণ মানুষের মনে ঘুরপাক খাচ্ছে। অথচ এই দুজনের কেউই খোলাসা করে বিষয়টি বলছেন না। যদিও গণমাধ্যমে দেওয়া সাক্ষাৎকারে বুবলী বলছেন, বিচ্ছেদের খবর নেহাতই গুজব এবং শাকিবকে নিয়ে তিনি সুখে সংসার করতে চান। কিন্তু বাংলাদেশ প্রতিদিনকে শাকিব এ নিয়ে সরাসরি কিছু না বললেও পরোক্ষভাবে বলেন, ‘আমাদের মধ্যে কোনো সম্পর্ক আছে কি নেই সেটা যারা সবকিছু দেখেও না দেখার এবং বুঝেও না বোঝার ভাণ করে আমি সময়মতো তা সবাইকে বুঝিয়ে দেব?’

এমন পরোক্ষ জবাবের পর শাকিব বলেছেন, ‘অনেক সত্য চাইলেই বাচ্চাটার (পুত্র শেহজাদ খান বীর) স্বার্থে প্রকাশ করতে পারি না। কারণ, বীর বড় হচ্ছে, আমি চাই না আগামীতে তার মনে এ নিয়ে কোনও বাজে প্রতিক্রিয়া তৈরি হোক।’

দুই বিয়ে গোপন রাখা প্রসঙ্গে শাকিব বলছেন, ‘আমার ইচ্ছা ছিল সময়মতো সুন্দর আয়োজনের মাধ্যমে ঘটা করে বিষয়টি সবাইকে জানিয়ে সবার সঙ্গে একসঙ্গে আনন্দ করব। কিন্তু অপু বা বুবলী কেউই আমাকে সেই সুযোগ দেয়নি।

গুঞ্জন আছে, ২০১৬ সালে ‘বসগিরি’ ছবিতে একসঙ্গে কাজ করতে গিয়ে শবনম বুবলীর সঙ্গে সম্পর্কে জড়ান শাকিব খান। অপু বিশ্বাস সে কথা জানতে পেরেই তড়িঘড়ি তার আর শাকিবের বিয়ে এবং সন্তানের কথা প্রকাশ করেন। কিন্তু ফল ভালো হয়নি। ২০১৭-এর নভেম্বরে অপু তালাকনামা ধরিয়ে দেন কিং খান।

এর পরের বছরের ২০ জুলাই প্রেমিকা শবনম বুবলীকে বিয়ে করেন শাকিব খান। এ বিয়ের খবরও গোপন ছিল। ২০২০ সালের ২১ মার্চ আমেরিকায় জন্ম হয় বুবলীর প্রথম এবং শাকিব খানের দ্বিতীয় সন্তান শেহজাদ খান বীরের। গত ৩০ সেপ্টেম্বর এসব সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে প্রকাশ করেন শবনম বুবলী।