তিলোত্তমা-আল আমিনসহ ৩২ ছাত্রলীগ নেতার বিরুদ্ধে মামলা

তিলোত্তমা-আল আমিনসহ ৩২ ছাত্রলীগ নেতার বিরুদ্ধে মামলা
সংগৃহীত ছবি

রাজধানীর হাইকোর্ট এলাকার দোয়েল চত্বরে ছাত্রদলের নেতাকর্মীদের ওপর হামলার ঘটনায় মামলা হয়েছে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি তিলোত্তমা শিকদার, বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়-বিষয়ক সম্পাদক আল আমিন রহমানসহ ৩২ নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে।

মামলাটি আমলে নিয়ে আদালত শাহবাগ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে (ওসি) তদন্ত প্রতিবেদন দিতে বলেছেন।

বাদী হয়ে মামলাটি করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের শিক্ষার্থী মানসুরা আলম। মামলায় বেআইনিভাবে সংঘবদ্ধ হয়ে মারধর, হত্যা চেষ্টা, মোবাইল ও টাকা-পয়সা চুরির অভিযোগ আনা হয়েছে। দণ্ডবিধির ১৪৩, ১৪৭, ১৪৮, ৩০৬, ৩২৩, ৩২৬, ৩৭৯, ৪৪৭, ৫০৬, ৩৪ ধারায় আসামিদের বিরুদ্ধে এ মামলা করা হয়।

আজ রোববার ঢাকার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মো. শান্ত ইসলাম মল্লিকের আদালতে মামলার আবেদন করেন বাদী। আদালত বাদীর জবানবন্দি গ্রহণ করে আদেশ পরে দেবেন বলে জানান। পরে আদালত বসলে মামলাটি আমলে নেওয়া হয় পাশাপাশি অভিযোগ তদন্তে থানা পুলিশকে আদেশ দেন আদালত। বাদীপক্ষের আইনজীবী আবুল কালাম খান গণমাধ্যমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

মামলায় অন্য আসামিরা হলেন-ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সম্পাদক রাশেদ ফেরদৌস আকাশ, সাংগঠনিক সম্পাদক নাজিম উদ্দিন, সহ-সম্পাদক আমানুল্লাহ আমান, পরিবেশ-বিষয়ক সম্পাদক শামীম পারভেজ, গণশিক্ষা-বিষয়ক সম্পাদক আব্দুল্লাহ হিল বারী, উপ-দপ্তর সম্পাদক মো. নাজির, উপ আপ্যায়ন বিষয়ক সম্পাদক শাহিন তালুকদার, উপ-দপ্তর সম্পাদক খান মোহাম্মদ শিমুল, কর্মসূচি ও পরিকল্পনা-বিষয়ক সম্পাদক সাদ্দাম হোসেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের জগন্নাথ হলের নেতা অভিজ্ঞান দাস অন্তু, শামসুন নাহার হলের সভাপতি খাদিজা আক্তার উর্মি, ঢাকা কলেজ ছাত্রলীগের সহ-সম্পাদক সামাদ আজাদ জুলফিকার, অমর একুশে হলের সভাপতি এনায়েত এইচ মনন, অমর একুশে হলের সাধারণ সম্পাদক ইমদাদুল হোসেন সোহাগ, অমর একুশে হলের সহ-সভাপতি রাকিব হোসেন, বিজয় একাত্তর হলের সাবেক সহ-সভাপতি মজিবুল বাশার, ঢাবির সলিমুল্লাহ হলের কর্মী নাজিমুদ্দিন সাইমুন, ঢাবির শহিদুল্লাহ হলের সভাপতি শরীফ আহম্মেদ, চুয়েট ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি সৈয়দ ইমাম বাকের, এফ রহমান হলের কর্মী আব্দুর রহিম, ছাত্রলীগের কর্মী মাহমুদ চৌধুরী, ঢাবি ছাত্রলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক সাজ্জাদ, এস এম হলের কর্মী সায়েম, ঢাবির এফ রহমান হলের সভাপতি রিয়াজ ঢাবির বঙ্গবন্ধু হলের সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুর রহমান, ঢাবি ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি আব্দুল্লাহ আল ফারিয়াল, ঢাবির শহীদুল্লাহ হলের সাধারণ সম্পাদক মুনিম শাহরিয়ার, সূর্যসেন হল ছাত্রলীগের কর্মী নাহিদ সানি, জগন্নাথ হলের কর্মী ঐশিক শুভ্র, জগন্নাথ হলের কর্মী সৌরভ চক্রবর্তী।

মামলায় ৩২ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞানামা আরও ১০০ জনকে আসামি করা হয়েছে।