ধর্মান্তরিত করে হিন্দু কিশোরীকে বিয়ে, নববধূকে জোরপূর্বক ফেরত

ইন্টারনেট সংগৃহীত ছবি

স্থানীয় প্রভাবশালী ব্যক্তিরা পুলিশের মাধ্যমে হিন্দু বাবা-মায়ের হাতে তুলে দিলেন ভোলার দৌলতখানে সদ্য মুসলিম হওয়া কামরুল ইসলামের স্ত্রী জান্নাতুল ফেরদাউসকে। এ ঘটনা ঘটে গত বৃহস্পতিবার উপজেলার চরখলিফা ইউনিয়নের দিদার উল্যাহ গ্রামে।

কামরুল ইসলাম দিদার উল্যাহ গ্রামের দিনমজুর আলী হোসেনের ছেলে। কামরুল জানান, দুই বছর আগে ঢাকার গাজীপুর জেলার জয়দেবপুর থানার নীলের পাড়ায় একটি ফ্যাক্টরিতে কাজ করতে গিয়ে তার প্রেমের সম্পর্ক হয় সংকর চন্দ্র মন্ডলের মেয়ে শ্রাবন্তী মন্ডলের সাথে। পরবর্তীতে দুজনের সম্মতিতে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করে শ্রাবন্তী মন্ডলের নতুন নাম রাখা হয় জান্নাতুল ফেরদাউস। পরে তারা বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়ে দৌলতখানে ফিরে আসেন।

গত শুক্রবার স্থানীয় কিছু প্রভাবশালী মিলে জোরপূর্বক নববধূকে তার হিন্দু বাবা-মায়ের হাতে তুলে দেয়। নবধূর কান্নার দৃশ্য ওই সময় কেউ গোপনে মোবাইল ফোনে ধারণ করেন। ঘটনার দিন রাতে সেই ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হয়। এ নিয়ে অনেকের মধ্যে ক্ষোভ দেখা যায়। ভিডিও ছড়িয়ে পড়ার পর পরই অভিযুক্ত প্রভাবশালীরা গা ঢাকা দিয়েছেন। যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে তাদের বন্ধ পাওয়া যায় মুঠোফোন।