মুনিয়াকে সমাহিত করা হয়েছে বাবা-মায়ের কবরের পাশে

ইন্টারনেট সংগৃহীত ছবি

কলেজছাত্রী মোসারাত জাহান মুনিয়াকে বাবা-মায়ের কবরের পাশে সমাহিত করা হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার বাদআসর জানাজা শেষে তাকে দাফন করা হয় কুমিল্লার টমছমব্রিজ কবরস্থানে।

গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে ময়নাতদন্ত শেষে বিকেল সাড়ে ৪টায় মুনিয়ার লাশ বহন করা গাড়িটি নগরীর উত্তর বাগিচাগাঁও এলাকার অরণি হাউজের সামনে নেওয়া হয়। অপেক্ষমাণ স্বজনরা সেখানে লাশের গাড়িতে এক পলক দেখেন মুনিয়াকে, জানান অশ্রুসিক্ত শেষ বিদায়।

দাফনের সময়ে সেখানে উপস্থিত ছিলেন তার একমাত্র ভাই, ভগ্নিপতিসহ স্বজনদের অনেকেই। তার ভাই সবুজ ওইসময় প্রশাসনের কাছে দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেন। তিনি বলেন, “আমার বোন মানসিকভাবে খুবই শক্ত ছিল। সে আত্মহত্যা করতে পারে না।”

মুনিয়ার বড় বোন নুসরাত জাহান কান্নারত কণ্ঠে বলেন, “আমার বোনকে মানসিক নির্যাতন করে মেরে ফেলা হয়েছে। আমি মামলা করেছি। আমি দোষীদের আটক ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করছি।”

উল্লেখ্য, ঢাকার একটি কলেজের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্রী ছিলেন কুমিল্লার মেয়ে মোসারাত জাহান মুনিয়া। তিনি রাজধানীর গুলশানের ১২০ নম্বর রোডের একটি বাড়ির অভিজাত ফ্ল্যাটে মার্চ মাসের ১ তারিখে ভাড়ায় ওঠেন। গত সোমবার সন্ধ্যায় গুলশান থানা পুলিশ ফ্ল্যাট থেকে গলায় ওড়না প্যাঁচানো অবস্থায় তার ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করে।