এক মুহূর্তের জন্য মনে হয়েছিল পারব নাঃ মরগ্যান

morgan

ক্রিকেট ইতিহাসের সবচেয়ে বিতর্কিত এবং অন্যতম সেরা ফাইনাল ছিল সেটি। ঠিক এক বছর আগে আজকের দিনে রুদ্ধশ্বাস ফাইনালে নিউজিল্যান্ডকে হারিয়ে বিশ্বকাপ জিতেছিল ইংল্যান্ড। একশো ওভারের পরেও ম্যাচ ছিল টাই। ফাইনাল গড়ায় সুপার ওভারে। সেখানেও দুই দলের রান সমান থাকায় বেশি বাউন্ডারি মারার বিতর্কিত আইনে ইংল্যান্ড চ্যাম্পিয়ন হয়।

বিশ্বকাপ জয়ের বর্ষপূর্তিতে ইংল্যান্ডের অধিনায়ক ইয়োইন মরগ্যান নিজের অনুভূতি জানিয়ে বলেন, ‘আমি প্রথম থেকেই আত্মবিশ্বাসী ছিলাম। কিন্তু এক মুহূর্তে মনে হয়েছিল হয়তো ম্যাচটা আমরা হেরে যাব।

তখন জিমি নিশাম বল করছিল বেন স্টোকসকে। নিশামের স্লোয়ার ডেল‌িভারি লং অনে তুলে মারে স্টোকস। বল বাতাসে ছিল অনেকক্ষণ। বল যত দূরে পাঠাতে চেয়েছিল স্টোকস, ততটা দূরে বল পৌঁছয়নি। তখনই আমার মনে হয়েছিল সব বোধহয় শেষ হয়ে গেল।’

ম্যাচ জিততে হলে ইংল্যান্ডের তখনও দরকার ছিল ১৫ রান। ৪৯তম ওভারের চতুর্থ বলে বেন স্টোকসের উড়িয়ে মারা বলটি ধরতে পারলেও শরীরের ভারসাম্য রাখতে না পেরে বাউন্ডারি লাইনে পা দিয়ে ফেলেছিলেন পেস তারকা ট্রেন্ট বোল্ট। ফলে বড় বাঁচা বেঁচে যান বেন স্টোকস। আম্পায়াররা ৬ রান দিয়েছিলেন। এই স্টোকসই ম্যাচটাকে সুপার ওভারে নিয়ে যান। হয়ে ওঠেন ইংল্যান্ডের বিশ্বকাপ জয়ের নায়ক।