মুশফিক ক্ষমা চাইলেন তার সতীর্থের কাছে

ফেসবুক থেকে নেওয়া মুশফিকুর রহীমের ছবি

ফরচুন বরিশালের বিপক্ষে ম্যাচের সময় মুশফিকুর রহীম ও সতীর্থ নাসুম আহমেদের সঙ্গে ঘটে যাওয়া অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনার জন্য তার সতীর্থ নাসুম আহমেদের কাছে ক্ষমা চেয়েছেন। নিজের ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে এ তথ্য জানিয়েছেন বেক্সিমকো ঢাকার এ অধিনায়ক।

আজ মঙ্গলবার সকালে মুশফিক তার সতীর্থ নাসুম আহমেদের সঙ্গে হাসি মুখে তোলা একটি ছবি পোস্ট করেন। সেখানেই ক্ষমা চাওয়ার বিষয়টি তিনি জানান।

মুশফিকুর রহীম লিখেন, ‘সবাইকে আসসালামু আলাইকুম। প্রথমেই গতকাল ম্যাচ চলাকালীন যে অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা ঘটেছে সে ব্যাপারে আনুষ্ঠানিকভাবে আমি ক্ষমা চাচ্ছি সকল ভক্ত এবং সমর্থকদের কাছে। এরই মধ্যে আমার টিমমেট নাসুম আহমেদের কাছে ক্ষমা চেয়ে নিয়েছি। দ্বিতীয়ত, আমি সব সময়ই আল্লাহর কাছ থেকে ক্ষমা চাই। আমি সব সময়ই মনে রাখার চেষ্টা করি যে, সব কিছুর ওপর আমিও একজন মানুষ। আমি এমন কোনো আচরণ যেন প্রকাশ না করি যেটা কারো কাছে গ্রহণযোগ্য নয়। ইনশাআল্লাহ, আমি প্রতিশ্রুতি দিচ্ছি, ভবিষ্যতে আমার দ্বারা মাঠের ভেতর এবং বাইরে এ ধরনের কোনো ঘটনা আর ঘটবে না। জাজাকাল্লাহু খাইর।’

এর আগে ঢাকা-বেক্সিমকো ম্যাচে ১৩তম ওভারে বল করতে আসেন নাসুম আহমেদ। প্রথম বলেই তিনি দেন ছক্কা। পরের বলে মিড উইকেট ঠেলে সিঙ্গেল নিতে গেলে রান আটকাতে দৌড় দেন বোলার নাসুম ও কিপার মুশফিক। একসঙ্গে দুজন জড়ো হওয়ায় ব্যাটসম্যানদের রান আউটের সুযোগ পেয়েও আউট করা সম্ভব হয়নি। বল ধরে মুশফিক তখন নাসুমের দিকেই থ্রো করতে উদ্যত হন।

অপর ঘটনা ঘটে ১৭তম ওভারের খেলায়। খেলা তখন অনেকটা বেক্সিমকো ঢাকার নিয়ন্ত্রণে। শফিকুলের বলে ফিফটি করা আফিফের ক্যাচ যায় উইকেটের পেছনে। সেই ক্যাচ হাতে ধরেন মুশফিক। ক্যাচ নিতে শর্ট ফাইন লেগে থাকা নাসুমও চলে আসেন। কিন্তু দুজনের ধাক্কা প্রায় লেগেই যাচ্ছিল। আবারও নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যায় মুশফিকের আবেগ। বাংলাদেশের এই নির্ভরযোগ্য ব্যাটসম্যানকে বল হাতে থাকা অবস্থায় নাসুমকে প্রায় ঘুষি মারতে উদ্যত হতে দেখা যায়।