রাজভবন হয়ে দিল্লিতে সৌরভ গাঙ্গুলী, বিজেপিতে যোগদান নিয়ে চলছে জল্পনা

Sourav Ganguly

দক্ষিণ এশিয়ার রাষ্ট্র ভারতের পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভা নির্বাচন সন্নিকটে। আগামী বছরের মাঝামাঝি রাজ্যে পালাবদল হবে, নাকি তৃতীয়বার ক্ষমতার বাঁধন ধরে রাখতে সফল হবে বর্তমান শাসকদল- এ নিয়ে প্রতিদিনই চর্চা চলছে উৎসুক রাজ্যবাসীর মধ্যে।

এরই মধ্যে ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহর দাবি, পশ্চিমবঙ্গে ২শ’র বেশি আসন পেয়ে ক্ষমতায় আসবে বিজেপি। পাশাপাশি তিনি স্পষ্ট করে দিয়েছেন, রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী এমন একজন হবেন যিনি এ রাজ্যেরই ভূমিপুত্র।

এরকম গুঞ্জন দাদা অর্থাৎ সৌরভ গাঙ্গুলীর দিকেই ইঙ্গিতপূর্ণ কিনা তা তো সময় বলবে। অবশ্য এ নিয়ে দাদা একটাও কথা বলেননি। তবে রোববার (২৭ ডিসেম্বর) রাজভবনে গিয়ে রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড়ের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন সৌরভ। আর তা সৌজন্য সাক্ষাৎ বলা হলেও সে মিটিং চলছে দু’ঘণ্টা।

রাজভবন থেকে সৌরভ বের হয়ে গতকাল বলেছিলেন, কোনোকিছু মনগড়া ভাববেন না। এটা নিছক সৌজন্য সাক্ষাৎ। রাজ্যপাল কোনোদিন ইডেন গার্ডেন দেখেননি। তাই তাকে ইডেন দেখার আমন্ত্রণ জানালাম। অপরদিকে, উনি দায়িত্ব নেওয়ার পরে আমার রাজভবনে আসা হয়নি। তাই এই সাক্ষাৎ।

কিন্তু, বিসিসিআই সভাপতি সৌরভ গতকাল রাজ্যপালের সঙ্গে সাক্ষাৎ সেরে সোমবারই (২৮ ডিসেম্বর) দিল্লি গেলেন। সেখানে ফিরোজ শাহ কোটলার একটি অনুষ্ঠানে যোগ দেন। সেই মঞ্চে আবার উপস্থিত ছিলেন অমিত শাহ। এই সাক্ষাৎ ঘিরে ইতোমধ্যেই নানা জল্পনা শুরু হয়েছে রাজনৈতিক মহলে।

দিল্লিতে প্রয়াত সাবেক কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলির ৬৮তম জন্মবার্ষিকীতে এদিন দুপুরে ফিরোজ শাহ কোটলায় মূর্তি উন্মোচন করা হয়। যিনি ১৯৯৯ সাল থেকে ২০১৩ সাল পর্যন্ত দিল্লি অ্যান্ড ডিস্ট্রিক্ট ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশনের (ডিডিসিএ) প্রেসিডেন্ট ছিলেন। আপাতত সেখানে দায়িত্বে আছেন তার পুত্র রোহন জেটলি।

সাবেক মন্ত্রী তথা প্রেসিডেন্টের মূর্তি উন্মোচন করেন অমিত শাহ। অনুষ্ঠানে ছিলেন কেন্দ্রীয় অসামরিক বিমান পরিবহনমন্ত্রী হরদীপ সিং পুরী, কেন্দ্রীয় ক্রীড়ামন্ত্রী কিরেন রিজিজু, কেন্দ্রীয় অর্থ মন্ত্রণালয়ের রাষ্ট্রমন্ত্রী অনুরাগ ঠাকুর, বিসিসিআই সচিব জয় শাহ, সাবেক ভারতীয় ক্রিকেটার বীরেন্দ্র সেহওয়াগ এবং বিজেপি সংসদ সদস্য তথা সাবেক ক্রিকেটার গৌতম গম্ভীর। তবে এই অনুষ্ঠানের যাবতীয় কেন্দ্রবিন্দুতে এখন সৌরভ।

এদিন প্লেন ধরার আগে কলকাতা বিমানবন্দরে আমিত শাহর সঙ্গে সাক্ষাৎ প্রসঙ্গে সৌরভ বলেন, কিচ্ছু কথা হবে না। কোনো জল্পনারও কারণ নেই’ এরপরেই উল্লেখযোগ্যভাবে বলেন, ‘আমি কি কারও সঙ্গে দেখা করতে পারি না?’

সৌরভ গাঙ্গুলী রাজনৈতিক জল্পনায় জল ঢালার চেষ্টা করলেও, এদিন দাদার বিজেপিতে যোগ প্রসঙ্গে ইঙ্গিতপূর্ণ মন্তব্য করেছেন রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। তার কথায়, এ বিষয়ে আমার কিছু জানার নেই। তিনি আমাদের সম্মানীয় ব্যক্তি। আমাদের ক্যাপ্টেন ছিলেন। ভালো লোকেদের বিজেপিতে আহ্বান জানানো হচ্ছে। সৌরভের মতো সফল ব্যক্তিদের রাজনীতিতে আসা উচিত।

এই প্রেক্ষাপটেও দিলীপ ঘোষের মন্তব্য এবং সৌরভ-শাহ সাক্ষাৎ ঘিরে জল্পনার মাত্রা আরও কয়েকগুণ বেড়েছে। তবে সৌরভ এমন এক ব্যক্তি যার সঙ্গে রাজ্যের সব রাজনৈতিক দলের অতিমাত্রায় সুসম্পর্ক বজায় আছে।