মানবিক বিষয় চিন্তা করেই ফেরি চলাচলের অনুমতি

ইন্টারনেট সংগৃহীত ছবি

দুই দিন বন্ধ রাখার পর গতকাল সোমবার (১০ মে) পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া রুটে, শিমুলিয়া-বাংলাবাজার, মাওয়া ঘাটে দেওয়া হয়েছে ফেরি চলাচলের অনুমতি।

নৌ-পরিবহন মন্ত্রণালয়ের সচিব মোহাম্মদ মেজবাহ্ উদ্দিন চৌধুরী গণমাধ্যমকে বলেন, ঘাটে ঈদ ঘুরমুখো যাত্রীরা পড়েছেন অনেক দুর্ভোগে। এসব মানুষের দুর্ভোগের কথা বিবেচনা করেই দেওয়া হয়েছে ফেরি চলাচলের অনুমতি। মূলত মানবিক বিষয় চিন্তা করেই ফেরি চলাচলের অনুমতি দেওয়া হয়েছে। বাংলাবাজার-শিমুলিয়া নৌরুটে ফেরি চলাচল স্বাভাবিক করে দেওয়া হয়েছে।

বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআইডব্লিউটিসি) বাংলাবাজার ঘাট ম্যানেজার সালাউদ্দিন জানান, ফেরি চলাচল স্বাভাবিক করে দিয়েছে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ। এখন চলাচল করবে সব ধরনের ফেরি।

এছাড়া স্বাভাবিক হয়েছে পাটুরিয়া-দৌলতদিয়ায় ফেরি চলাচল বলে জানিয়েছে বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ-পরিবহন করপোরেশনের (বিআইডব্লিউটিসি) পাটুরিয়া ঘাটের উপ মহাব্যবস্থাপক জিল্লুর রহমান।

তিনি জানান, “ওপর মহলের নির্দেশে পৌনে ৫টা থেকে সব ফেরি চলাচল শুরু হয়েছে। নির্দেশনা পাওয়ার পর থেকে পাটুরিয়া ঘাটের নোঙ্গর করা সব ফেরি চলাচল করছে। যাত্রী তেমন না থাকায় সাধারণ পণ্যবাহী ট্রাক পারাপার শুরু হয়েছে।”

এর আগে বিআইডব্লিউটিসি এক বিজ্ঞপ্তিতে পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া ও শিমুলিয়া-বাংলাবাজার নৌপথে ফেরি চলাচল বন্ধ থাকবে বলে জানানো হয়েছিল। এর ফলে হঠাৎ ফেরি বন্ধের ঘোষণায় দুর্ভোগে পড়ে আটকে থাকা গাড়ির চালক ও সাধারণ যাত্রীরা।