সততার পরিচয় দিতে নিজের গোপনাঙ্গই কেটে ফেললেন ধর্মগুরু

নিজের যৌনাঙ্গ কেটে সততার পরিচয় দিলেন এক ভারতীয় ধর্মগুরু। তার বিরুদ্ধে অভিযোগ, মহিলাদের সাথে তার যৌন সম্পর্ক রয়েছে। তাই নিজের সততার পরিচয় দিতে নিজের গোপনাঙ্গই কেটে ফেলেন তিনি। যখন রাম রহিমের একের পর এক কেচ্ছা প্রকাশ্যে এসেছে, তখন এই ‘বাবা’র কাণ্ডে সারা পড়ে গিয়েছে রাজস্থানে।

জানাযায়, রাজস্থানের চুরু জেলায় বাবা সন্তোষদাসের বেশ নামডাক রয়েছে। একটি আশ্রমও রয়েছে তাঁর। ‘হরিদাস’ নামের আশ্রমে প্রতিদিনই প্রচুর ভক্তের সমাগম হয়। সন্ধ্যায় আসরও বসে। সেখানে ধর্মের নানা কথা আলোচনা হয়। জেলার বিভিন্ন প্রান্ত থেকে মহিলা ভক্তের সমাগমও হত প্রচুর।

সম্প্রতি পবন সিং নামে এক ব্যক্তি বাবা সন্তোষদাসের বিরুদ্ধে মারাত্মক অভিযোগ তোলেন। তাঁর অভিযোগ, আশ্রমে আগত মহিলা ভক্তদের সঙ্গে যৌন সম্পর্ক রয়েছে ‘বাবা’র। এই অভিযোগ কানে আসা মাত্রই ক্ষোভে ফেটে পড়েন সন্তোষদাস। ‘সততা’ প্রমাণ করতে আশ্রমের মধ্যে নিজের পুরুষাঙ্গই কেটে ফেলেন তিনি। রক্তাক্ত অবস্থায় তাঁকে উদ্ধার করে প্রথমে স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। কিন্তু অবস্থার অবনতি হওয়ায় তাঁকে জেলা হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। বর্তমানে তাঁর শারীরিক অবস্থা আশঙ্কাজনক বলেই জানা গিয়েছে।

বাংলাদেশ সময়: ১১৩৮ ঘণ্টা, ১৯ অক্টোবর, ২০১৭
লেটেস্টবিডিনিউজ.কম/নীল