ঠাকুরগাঁওয়ে কৃষকের ছেলের বিমান উড়ছে আকাশে

biman

ঠাকুরগাঁওয়ের রাণীশংকৈল উপজেলার বলিদ্বাড়া গ্রামের দরিদ্র কৃষকের ছেলের বিমান উড়ছে আকাশে। তার এই আবিষ্কার এলাকায় সৃষ্টি করেছে চাঞ্চল্য। এই কৃষক পরিবারের সন্তান সালাউদ্দিনের স্বপ্ন পাইলট হওয়া। তার তৈরি বিমান পাঁচ কিলোমিটার নিয়ন্ত্রণ রেখায় সর্বোচ্চ ২ হাজার ফুট উচ্চতায় এবং ১০০ কিলোমিটার গতিতে ২০ মিনিট উড্ডয়ন করতে পারে।

জানা গেছে, সালাউদ্দিন গ্রামের কলেজ থেকে উচ্চ মাধ্যমিক পাস করে গোপালগঞ্জের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে কৃষি বিভাগে ভর্তি হন। ২০১৭ সালে পরীক্ষামূলকভাবে দূরপাল্লার চালকবিহীন বিমান তৈরির কাজ শুরু করেন। চার বছরের চেষ্টায় চলতি বছরের সেপ্টেম্বরে বিমান উড্ডয়নে সক্ষম হন তিনি।

Salauddin

বিশ্ববিদ্যালয়ে কৃষি বিভাগে অধ্যয়ন করলেও দৃষ্টিটা ছিল বিজ্ঞানের দিকে। বন্ধুদের নিয়ে ২০১৯ সালে প্রতিষ্ঠা করেন বশেমুরবিপ্রবি (বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়) বিজ্ঞান ক্লাব। শুরু করেন ড্রোন বানানোর কাজ। পরে বাঁশ, কাঠ, ককশিট, ফোমশিট ব্যবহার করে ছোট আকারের ড্রোন তৈরিতে সফল হন। যার ওজন এক কেজি। পরীক্ষামূলক এই বিমানটি পাঁচ কিলোমিটার নিয়ন্ত্রণ রেখার ভিতরে সর্বোচ্চ ২ হাজার ফুট উচ্চতায় এবং ১০০ কিলোমিটার গতিতে ২০ মিনিট উড্ডয়ন করতে পারে। বিমান উড্ডয়ন দেখতে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের ছাদে এবং ঠাকুরগাঁও জেলা মাঠে ভিড় জমাতে শুরু করেছেন স্থানীয়রা।

স্থানীয়রা জানান, সালাউদ্দিনের তৈরি করা বিমান আকাশে উড়ছে দেখে আমরা মুগ্ধ। সালাউদ্দিন বলেন, সরকারের পৃষ্ঠপোষকতা পেলে বিজ্ঞান প্রযুক্তিকে এগিয়ে নেওয়া সম্ভব। জেলা প্রশাসক ড. কে এম কামরুজ্জামান সেলিম জানান, প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষা ছাড়াই তার উদ্ভাবন অসাধারণ। সে চেষ্টা করে সফল হয়েছে। আমরা চেষ্টা করব তার পাশে থেকে সহযোগিতা করার।