পরিচয় মিলেছে শ্যামপুরে পানির ট্যাংকে উদ্ধারকৃত মৃত শিশুর

এই তিনতলার বাড়ির ছাদের পানির ট্যাংক থেকে নাহিদের মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ

রাজধানীর শ্যামপুরে একটি বাসার ছাদের পানির ট্যাংক থেকে উদ্ধারকৃত মৃত শিশুটির পরিচয় মিলেছে। শিশুটির নাম নিহাদ ইসলাম বয়স ৩ বছর। তার বাবার নাম হানিফ আলী ও মায়ের নাম নার্গিস বেগম। গতকাল (২৩ ফেব্রুয়ারি) মঙ্গলবার শিশুটির মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

আজ বুধবার সকালে শ্যামপুর থানায় গিয়ে ছবি দেখে প্রাথমিকভাবে তার পরিচয় শনাক্ত করা হয়েছে। পরে বিকেলে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে শিশুটির বাবা মো. হানিফ আলী ও চাচা মোহাম্মদ আলীসহ শিশুটির স্বজনরা পরিচয় শনাক্ত করেন।

শিশু নাহিদের বাড়ি পঞ্চগড়ের দেবীগঞ্জ উপজেলার বেংহাড়ী গ্রামে। গাজীপুরের গাছা থানার উত্তর খাইলকুর গ্রামে পরিবারের সঙ্গে থাকতো নাহিদ। সে বাবা-মায়ের একমাত্র সন্তান। তারা বাবা-মা দুজনেই পোশাক শ্রমিক।

হানিফ আলী জানান, গত ২০ ফেব্রুয়ারি কর্মস্থল সততা মিনি সুয়েটার ফ্যাক্টরিতে শিশুটির মা নার্গিস বেগম নাহিদকে নিয়ে যান। খেলাধুলা করতে করতে এক সময় গেটের বাইরে চলে আসে নাহিদ। এ সময় মুখোশ পরিহিত এক ব্যক্তি তাকে ধরে নিয়ে যান। আশপাশে অনেক খোঁজাখুঁজির পরও তাকে না পেয়ে গাছা থানায় অভিযোগ করা হয়।

পরে মঙ্গলবার শ্যামপুরের করিমউল্লাহবাগ এলাকার একটি তিনতলার বাড়ির ছাদের পানির ট্যাংক থেকে নাহিদের মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। বিভিন্ন গণমাধ্যমের সংবাদ শুনে বুধবার সকালে শ্যামপুর থানায় যোগাযোগ করেন শিশুটির বাবা-মা। সেখানে মৃত শিশুটির ছবি দেখে চিনতে পারেন না হানিফ আলী ও নার্গিস বেগম। শিশুটির মরদেহ বিভৎস ও পঁচে যাওয়ায় চেনা যাচ্ছিল না। পরে শিশুটির কোমরে বাঁধা ফিতা, চাবি ও ঝুনঝুনি দেখে নাহিদকে শনাক্ত করতে পারেন হানিফ আলী।