বরিশালে কুপিয়ে মেয়েকে হত্যা, হাসপাতালে আহত মা

প্রতীকী ছবি

গতকাল রবিবার সন্ধ্যায় বরিশালের হিজলা উপজেলার বড়জালিয়া ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের শ্রীপুর গ্রামে জমি নিয়ে বিরোধের জেরে এক নারীকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে। এ সময় ওই নারীর মা গুরুতর আহত হয়েছেন। নিহত রেহেনা বেগম (৪৫) শ্রীপুর গ্রামের মৃত আমির হোসেন হাওলাদারের স্ত্রী। এছাড়া আহত নূরজাহান বেগম (৬৭) একই এলাকার মৃত আব্দুর রব মুন্সীর স্ত্রী (৭৫)।

জানা যায়, নূরজাহান বেগমের সাথে জমিজমা নিয়ে দ্বন্দ্ব চলছিল একই এলাকার মৃত আব্দুর রহিম মল্লিকের ছেলে তামিম মল্লিক ও সাব্বির মল্লিকের। গত শনিবার বিকেলে এ নিয়ে নূরজাহানের মেয়ে রেহেনাকে মারধর করেন তামিম ও সাব্বির মল্লিক। এ ঘটনায় গতকাল রবিবার সন্ধ্যায় আবারও বাগবিতণ্ডা হয় দুই পরিবারের মাঝে। পরে একপর্যায়ে মারামারিতে রূপ নেয়।

এতে প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, গতকাল রবিবার সন্ধ্যার দিকে হঠাৎ করে ধারালো অস্ত্র নিয়ে রেহেনা বেগমের ওপর হামলা করেন তামিম মল্লিক। তামিম মল্লিক তাকে একের পর এক আঘাত করেন। এ সময় রেহেনা বেগমকে বাঁচাতে তার মা নুরজাহান বেগম এগিয়ে এলে তাকেও কুপিয়ে গুরুতর আহত করা হয়। মা ও মেয়ে দু’জনই একপর্যায়ে মাটিতে লুটিয়ে পড়েন। এরপর হামলাকারী তামিম মল্লিক দ্রুত ঘটনাস্থল ত্যাগ করেন। স্থানীয়রা তাদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে সেখানে রেহেনা বেগমকে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। নুরজাহান বেগমের অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাকে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার করা হয়।

এ ঘটনার প্রসঙ্গে হিজলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বলেন, সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়। এখনো কাউকে গ্রেফতার করা সম্ভব হয়নি। তবে মামলার প্রস্তুতি চলছে। মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।