প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের নিজ বিদ্যালয়ে মূল্যায়ন, রোল থাকবে একই

students

দেশের প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের নিজ নিজ বিদ্যালয়ে শিক্ষকদের মাধ্যমে মূল্যায়ন করে পরবর্তী শ্রেণিতে উন্নীতের নির্দেশনা দিয়েছে সরকার। প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর সোমবার (২৩ নভেম্বর) এমন নির্দেশনা দিয়ে প্রাথমিক শিক্ষার সব বিভাগীয় উপপরিচালক, জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার, উপজেলা/থানা শিক্ষা অফিসার, সহকারী উপজেলা/থানা শিক্ষা অফিসার এবং প্রধান শিক্ষকদের কাছে চিঠি পাঠিয়েছে।

নির্দেশনা জারি নিয়ে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক আলমগীর মুহম্মদ মনসুরুল আলম জানান, মূল্যায়ন করা হলেও শিক্ষার্থীদের রোল একই থাকবে। অর্থাৎ, বর্তমান শ্রেণির রোল নিয়ে তারা পরবর্তী শ্রেণিতে যাবে।

অধিদপ্তরের মহাপরিচালক আলমগীর মুহম্মদ মনসুরুল আলম স্বাক্ষরিত নির্দেশনায় বলা হয়েছে, কোভিড-১৯ প্রাদুর্ভাবের প্রাক্কালে ১৬ মার্চ পর্যন্ত বিদ্যালয়ের স্বাভাবিক পাঠদান চলমান ছিল। পরবর্তীসময়ে কোভিড-১৯ পরিস্থিতিতে শিক্ষার্থীদের শিখন কার্যক্রম অব্যাহত রাখতে সংসদ বাংলাদেশ টেলিভিশন, বাংলাদেশ বেতার, কমিউনিটি রেডিওর মাধ্যমে ডিজিটাল পদ্ধতিতে পাঠদান কার্যক্রম পরিচালনা করা হয়। এ কার্যক্রম বাস্তবায়নে শিক্ষা সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা সম্পৃক্ত ছিলেন। এ প্রেক্ষাপটে শিক্ষকরা তাদের নিজ নিজ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের মূল্যায়নের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার অনুরোধ করা হলো।

মহামারি করোনা ভাইরাসের সংক্রমণের কারণে দেশের সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের চলমান ছুটি আগামী ১৯ ডিসেম্বর পর্যন্ত বাড়িয়েছে সরকার। মাধ্যমিক স্তরের শিক্ষার্থীদের পরীক্ষা ছাড়া পরবর্তী ক্লাসে তুলে দেওয়া হবে। এখন প্রাথমিকের শিক্ষার্থীদের ক্ষেত্রেও এ সিদ্ধান্ত হলো।

এ বিষয়ে প্রাথমিক শিক্ষার মহাপরিচালক বলেন, কোভিডের কারণে আনুষ্ঠানিকভাবে পরীক্ষা নিতে পারছি না। এসব ছোট বাচ্চাদের অ্যাসাইনমেন্ট দেওয়াও যায় না।

তিনি বলেন, ১৬ মার্চ পর্যন্ত আমাদের বাচ্চাদের ক্লাস হয়েছে। ক্লাসে টেস্ট হয়েছে। আর শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধের পর সংসদ টিভি, বাংলাদেশ বেতার, অনলাইন-জুম ছাড়াও অনেক শিক্ষক বাড়ি বাড়ি গিয়ে হোম ওয়ার্ক দিয়ে শিক্ষার্থীদের পড়িয়েছে। এছাড়াও শিক্ষকরা মোবাইল ফোনের মাধ্যমে কল করে শিক্ষার্থীদের পড়া দিয়েছে, পড়া নিয়েছে- এসবের রেকর্ড আছে। মহামারির কারণে আনুষ্ঠানিক কোনো পরীক্ষা হবে না। মূল্যায়নটা শিক্ষকদের ওই রেকর্ড থেকে হবে।

মহাপরিচালক আরো বলেন, পরবর্তী ক্লাসে উন্নীতের জন্য শিক্ষকরা আগের রোল নম্বর ফলো করবে। সবাই পরের ক্লাসে প্রমোশন পাবে।