নিজের স্ত্রীকে ছোট ভাইয়ের সঙ্গে বিয়ে!

প্রতিদিনই আমাদের চারপাশের দুনিয়ায় অসঙ্গতিমূলক নানা ঘটনা ঘটে চলেছে। এমন কিছু ঘটনা আমাদের নজরে আসে যা ভাবলে কখনও কখনও গা শিউরে উঠে। কখনও বা আক্ষেপ হয়, দুঃখও হয়। তবে অসঙ্গতিমূলক রসাত্মক কিংবা মজার ঘটনাও রয়েছে এ তালিকায়।

এবার তাই হলো। দেবরের সঙ্গে ভাবির প্রেম ছিল। আর সেটি টের পেয়ে লোকলজ্জার ভয়ে অতি ভদ্রলোক বড় ভাই আপন ছোট ভাইয়ের সঙ্গে নিজের স্ত্রীকে বিয়ে দিলেন। বিয়ে দিয়েই ক্ষ্যান্ত হননি, এরই মধ্যে বাড়িও ছেড়েছেন বড়ভাই। সম্প্রতি প্রতিবেশী দেশ ভারতে এমন ঘটনা ঘটে।

৩০ বছরের পবন গোস্বামীর সঙ্গে প্রিয়াঙ্কার বিয়ে হয়েছিল চার বছর আগে। তাদের একটি দু’বছরের মেয়েও আছে। কিন্তু বিয়ের পর থেকেই পবনের ভাই সজনের সঙ্গে প্রেম শুরু হয় নববধূর। ক্রমে সেই সম্পর্ক গাঢ় হতে থাকে। আর সকলের মতো পবনও টের পান সেই প্রেমের কথা।

এসব ক্ষেত্রে সাধারণত স্ত্রীকে মারধর কিংবা ভাইকে বাড়ি থেকে তাড়িয়ে দেয়ার ঘটনা ঘটে থাকে। কিন্তু সেই চেনা সেই পথে হাঁটেননি ভাগলপুরের ঘোঘা গ্রামের পবন। তিনি স্থির করেন ডিভোর্স দেবেন প্রিয়াঙ্কাকে।
ততদিনে গোটা গ্রামে জানাজানি হয়ে গিয়েছে ব্যাপারটা। একবার সিদ্ধান্ত নিয়ে নেওয়ার পরে পবন আর দেরি করেননি। ডিভোর্স পেপারে সই করেন পবন ও প্রিয়াঙ্কা। তারপর গ্রামের এক আশ্রমে বিয়ে হয় সজন ও প্রিয়াঙ্কার।

এরপর আর ওই গ্রামে থাকেননি পবন। বাড়ি ছেড়ে চলে গিয়েছেন পেশায় শ্রমিকের কাজ করা পবন। প্রিয়াঙ্কা এখন সজনের স্ত্রী। সজন অবশ্য এখনও বেকার। চাকরি খুঁজছেন। আর প্রিয়াঙ্কা ঘরে বসে তার ছোট্ট মেয়েকে শেখাচ্ছেন, ‘এখন থেকে সজন কাকাই তোমার বাবা। ওকে বাবা ডাকবে।’ মেয়েও হয়তো মায়ের বুলি ঠিকঠাকভাবেই শিখে নিচ্ছে!

বাংলাদেশ সময়: ১৩০৬ ঘণ্টা, ০৯  জানুয়ারি, ২০১৮

লেটেস্টবিডিনিউজ.কম/এস

SHARE