বিমান থেকে নেমে নিজেকে সামলাতে পারলেন না ফখরুল

ফাইল ছবি

ঢাকার গুলশান কার্যালয়ে বেগম খালেদা জিয়ার মনোনয়নপত্রে স্বাক্ষর করতে গিয়ে কান্নার পর এবার নীলফামারীর সৈয়দপুর বিমানবন্দরে নেমে কেঁদে ফেলেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। ঢাকা থেকে নভোএয়ারের একটি ফ্লাইটে বুধবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে সৈয়দপুর বিমানবন্দরে অবতরণ করেন ফখরুল। এ সময় স্থানীয় নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে বক্তব্য দেয়ার একপর্যায়ে কেঁদে ফেলেন তিনি।

মির্জা ফখরুল বলেন, বগুড়া-৬ (সদর) আসন থেকে নির্বাচন করার জন্য দল থেকে আমাকে বলা হয়েছে। দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে বাদ দিয়ে নির্বাচন করার কথা আমরা কখনো ভাবিনি। আজ ভারাক্রান্ত হৃদয়ে বলতে হচ্ছে এটি আমাদের জন্য অনেক কষ্টের। বাংলাদেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় নেত্রী, তাকে বাদ দিয়ে একটি জাতীয় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে। এটা সরকারের যে অপকৌশল, নির্বাচনের ঠিক পূর্বে এ রায় ঘোষণার অর্থ হচ্ছে দেশনেত্রীকে নির্বাচন থেকে দূরে সরিয়ে রাখা। তবুও আমরা লড়ে যাব।

তিনি বলেন, বিএনপিকে নিয়ে ষড়যন্ত্র চলছে অনেক আগ থেকে। সর্বশেষ খালেদা জিয়াকে রাজনীতি থেকে দূরে রাখার জন্য আদালতের মাধ্যমে আদেশ দেয়া হয়েছে। দেশের জনগণ এ রায়, এ আদেশ মানে না, মানে না, গ্রহণ করে না।

আমরা তারপরও বলেছি, আমরা এ নির্বাচনকে আমাদের আন্দোলনের অংশ হিসেবে নিয়েছি। বর্তমানে যে পরিস্থিতি, সেই পরিস্থিতিকে সঙ্গে নিয়ে আমরা এ চ্যালেঞ্জের মোকাবেলা করব।

ফখরুল বলেন, সরকার যতই চেষ্টা করুক আমাদের নির্বাচন থেকে দূরে সরিয়ে দেয়ার, আমরা নির্বাচন থেকে দূরে সরে যাব না। আমরা শেষ পর্যন্ত এ নির্বাচনে থাকব। এ নির্বাচনে জয়ী হয়ে আমরা দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে কারাগার থেকে মুক্ত করব।

বগুড়া-৬ (সদর) এ আসন থেকে নির্বাচন করার জন্য দল থেকে আমাকে বলা হয়েছে। অত্যন্ত দ্রুততার সঙ্গে আমাদের বগুড়ার নেতৃবৃন্দ এয়ারপোর্টে এসেছিলেন। তাদের ফরম ফিলাপ করে দিয়েছি জমা দেয়ার জন্য। আমি আশা করছি বগুড়া-৬ থেকে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করব দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার নামে।

কান্নাজড়িত কণ্ঠে মির্জা ফখরুল বলেন, আজকে এ ফরমে সই করতে গিয়ে আমি অত্যন্ত ভারাক্রান্ত হয়েছি। নেতারাও ভারাক্রান্ত হয়েছেন। আল্লাহ তায়ালার কাছে ভরসা রাখছি আগামী নির্বাচনে আমাদের জয় ইনশাআল্লাহ হবেই।

এ সময় বিমানবন্দরে উপস্থিত ছিলেন- সৈয়দপুর পৌর মেয়র নীলফামারী-৪ আসনের সংসদ সদস্য প্রার্থী অধ্যক্ষ আমজাদ হোসেন সরকার, পৌর কাউন্সিলর বিএনপি নেতা জিয়াউল হক জিয়া, দিনাজপুর-৪ আসনের সংসদ সদস্য প্রার্থী আখতারুজ্জামান মিয়াসহ ঠাকুরগাঁও, দিনাজপুর জেলার বিভিন্ন স্তরের নেতাকর্মী।

বিমানবন্দর থেকে সৈয়দপুর শহরের ক্যান্টনমেন্ট রোড হয়ে দিনাজপুর রোড ও রাবেয়া মোড় পর্যন্ত রাস্তার দুই পাশে নেতাকর্মী ও সমর্থকরা হাতে ধানের শীষ নিয়ে ফখরুলকে অভ্যর্থনা জানান।

লেটেস্টবিডিনিউজ.কম/পিএস