Home ম্যাগাজিন ‘ভার্জিন’ মেয়েকে পাত্র দিতে কোটি টাকা পণ

‘ভার্জিন’ মেয়েকে পাত্র দিতে কোটি টাকা পণ

- Advertisement -

ব্যবসা-বাণিজ্যে পারদর্শী, একাধিক ভাষায় কথা বলতে পারে এবং ভার্জিন এক মেয়ের জন্য পাত্র খুঁজতে চমক দিয়েছেন পিতা। ২৬ বছরের মেয়েকে পাত্রস্থ করতে ২ লাখ ৪০ হাজার পাউন্ড (২ কোটি ৬১ লাখ ৯৪ হাজার ২০ টাকা) পণ দেওয়ার কথা ঘোষণা দিয়েছেন থাইল্যান্ডের আরনন রদথং নামে কোটিপতি এক কৃষক।

ডেইলি মেইল এর প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সোশ্যাল মিডিয়ায় মেয়ের বিয়ের বিজ্ঞাপন দিয়েছেন থাইল্যান্ডের কৃষক আরনন রদথং। ৫৮ বছর বয়সী এই কৃষক তার ২৬ বছর বয়সী মেয়ের জন্য পাত্র খুঁজছেন। মেয়েকে পাত্রস্থ করতে এই বিপুল পণ দেওয়ার কথা তিনি ঘোষণা দিয়েছেন। একই সঙ্গে তার সব সম্পত্তিও জামাতাই পাবে বলে জানিয়ে দিয়েছেন তিনি।

- Advertisement -

তার কথায়, ‘আমার মেয়ে আমার সঙ্গে থেকে ব্যবসা শিখেছে। ইংরেজি এবং চীনা ভাষায় পারদর্শী এবং ভার্জিন।’ পাশাপাশি তিনি আরও বলেছেন, ‘আমি এমন একজনকে চাইছি যে আমার ব্যবসা দেখবে এবং তা আরও বড় করবে। কোনো কলেজ বা বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিগ্রিধারীর প্রয়োজন নেই।’

তবে এই বিজ্ঞাপনের বিষয়ে ওই মেয়ে প্রথমে অবগত ছিলেন না, পরে বেশ খুশি হয়েছেন। তিনি বলেছেন, ‘আমি এই বিষয়ে কিছুই জানতাম না, বন্ধুরা আমায় বিষয়টি জানায়। খুব অবাক হয়ে গিয়েছিলাম। বিষয়টা কিন্তু খুব মজার।’

২৬ বছর বয়সে এসেও প্রেমিক জোটাতে পারেননি? এই প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘এখনো আমার কোনো প্রেমিক নেই, কখনো ছিলও না। আমি এমন ছেলেকে বিয়ে করব যে খুব পরিশ্রমী হবে এবং নিজের পরিবারকে খুব ভালোবাসবে।’

মেয়েকে খুশি রাখতে পারবে এবং পরিশ্রমী হবে এমন ছেলেই মেয়ের জন্য খুঁজছেন বলে জানিয়েছেন কোটিপতি ব্যবসায়ী আরনন রদথং। আরও বড় বিষয় হচ্ছে নাগরিকত্বের কোনো বাধা নেই। যেকোনো দেশের নাগরিকেরা তার মেয়েকে বিয়ের জন্য আবেদন করতে পারবে।

- Advertisement -