জাতীয় সংসদ প্রাঙ্গণে সাবেক মেয়র খোকার জানাজা অনুষ্ঠিত

parliament
ছবিঃ সংগৃহীত

অবিভক্ত ঢাকা সিটি করপোরেশনের সাবেক মেয়র ও বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান সাদেক হোসেন খোকার জানাজা অনুষ্ঠিত হয়েছে জাতীয় সংসদের দক্ষিণ প্লাজায়।

বৃহস্পতিবার বেলা সোয়া ১১টার দিকে অনুষ্ঠিত এ জানাজায় বর্তমান ও সাবেক সাংসদ, বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতা–কর্মীসহ সর্বস্তরের মানুষ অংশ নেন।

ইউএনবির খবরে বলা হয়, সংসদ প্রাঙ্গণে জানাজা শেষে মুক্তিযোদ্ধা খোকার মরদেহ সর্বস্তরের মানুষের শ্রদ্ধা নিবেদনের জন্য শহীদ মিনারে নেওয়া হয়। সেখানে সর্বস্তরের মানুষ ৭১–এর গেরিলাযোদ্ধার প্রতি শেষ শ্রদ্ধা জানান।

সাদেক হোসেন খোকার মরদেহ আজ সকাল ৮টা ২৮ মিনিটে শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছে।

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ও স্থায়ী কমিটির সদস্য ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু তাঁর মরদেহ গ্রহণ করেন। বিমানবন্দর থেকে খোকার মরদেহ জাতীয় সংসদ ভবনে নেওয়া হয়। দেশে এটাই সাদেক হোসেন খোকার প্রথম জানাজা।

ঢাকা সিটি করপোরেশনের সাবেক মেয়র সাদেক হোসেন খোকার প্রথম জানাজা জ্যামাইকা মুসলিম সেন্টার মসজিদে অনুষ্ঠিত হয়েছে। জানাজায় যুক্তরাষ্ট্রে অবস্থানরত সর্বস্তরের বাংলাদেশিরা অংশ নিয়েছেন। জানাজা শেষে তাঁকে গার্ড অব অনার দেওয়া হয়।

বাংলাদেশ সময় বুধবার সকালে সাদেক হোসেন খোকার মরদেহ নিয়ে ঢাকার উদ্দেশে রওনা দেন তাঁর পরিবারের সদস্যরা।

সাদেক হোসেন খোকা সোমবার বেলা দুইটার দিকে যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কের একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। ক্যানসারে আক্রান্ত সাদেক হোসেন প্রায় পাঁচ বছর ধরে যুক্তরাষ্ট্রে নির্বাসিত ছিলেন।

১৯৭১ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র থাকাকালে সাদেক হোসেন খোকা মুক্তিযুদ্ধে অংশ নিয়েছিলেন।

সাদেক হোসেন খোকা ১৯৯১ সালের জাতীয় সংসদ নির্বাচনে প্রথম বিএনপি থেকে সাংসদ নির্বাচিত হন। তাঁর দল সরকার গঠন করলে তিনি যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব লাভ করেন। পরবর্তী সময়ে ১৯৯৬ ও ২০০১ সালেও তিনি সাংসদ নির্বাচিত হন। ২০০১ সালে তাঁর দল সরকার গঠন করলে তিনি মৎস্য ও পশুসম্পদ মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব লাভ করেন। ২০০২ সালে তিনি অবিভক্ত ঢাকা সিটি করপোরেশনের মেয়র নির্বাচিত হন।