ইংল্যান্ডের অগ্নিপরীক্ষা নেবে ব্রাজিল

দ্বিতীয় অগ্নিপরীক্ষা দিতে যাচ্ছে ইংল্যান্ড। এবার ইংলিশদের এ পরীক্ষা নেবে ফর্মের তুঙ্গে থাকা ব্রাজিল। এমন ম্যাচটি লন্ডনের বিখ্যাত ওয়েম্বলি স্টেডিয়ামে শুরু হবে বাংলাদেশ সময় মঙ্গলবার রাত ২টায়।

ম্যাচটি প্রীতি হলেও তা ঘিরে বিশ্বের কোটি ফুটবল-অনুরাগীর মাঝে বিরাজ করছে তুমুল উত্তেজনা। উত্তেজনার পারদ তুঙ্গে থাকাটাও স্বাভাবিক। কারণ, ম্যাচটির বদৌলতেই তো অসাধারণ ফুটবলীয় ক্যারিশমা এবং ব্যক্তিগত নৈপুণ্য দেখার দুর্লভ সুযোগ পাচ্ছেন তারা।

রাশিয়া বিশ্বকাপ শুরু হতে এখনো ৭ মাস বাকি। এতে অংশ নেবে মোট ৩২ দল। এখনো ৪ দল তাতে খেলার ছাড়পত্রের অপেক্ষায় রয়েছে। তবে চূড়ান্ত পর্বে মাঠে নামার আগে ২০১৮ বিশ্বকাপের টিকিট কেটে ফেলা ২৮ দল এরই মধ্যে প্রাক-প্রস্তুতি শুরু করে দিয়েছে।

ইংল্যান্ড, ব্রাজিল একটি করে ম্যাচও খেলে ফেলেছে। ফ্রান্সের লিলেতে জাপানের বিপক্ষে ৩-১ গোলের দুর্দান্ত জয় তুলে নিয়েছে সেলেকাওরা। আর নিজেদের মাঠে ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন জার্মানির সঙ্গে গোলশূন্য ড্র করেছে ইংলিশরা। তবে এ ম্যাচে জয় পেতে মুখিয়ে কোচ গ্যারেথ সাউথগেটের দল। শক্তিশালী ব্রাজিলকে হারিয়েই জোরেশোরে প্রস্তুতিটা সেরে নিতে চায় তারা।

তবে বিন্দুমান্ত্র ছাড় দিতে নারাজ তিতের শিষ্যরা। এ ম্যাচে হ্যারি কেন, রাশফোর্ডদের কঠিন পরীক্ষা নেবেন বলে হুঁশিয়ারী দিয়েছেন থ্রি লায়ন্সরা।
সবশেষ পাঁচটি ম্যাচের ৪টিতেই জয় পেয়েছে ইংল্যান্ড। তবে ম্যাচগুলো ছিল বিশ্বকাপ বাছাইপর্বের। ড্র ১টিতে। আর সবশেষ ৫ ম্যাচের ৩টিতে জিতেছে ব্রাজিল। ড্র করেছে ২টিতে। ওই ৫ ম্যাচের ৪টিই আবার বিশ্বকাপ বাছাইপর্বের। সার্বিক বিচারে বলা যায়, সাম্প্রতিক শক্তির হিসাব-নিকাশে দু’দলই সমান। অর্থাৎ ওয়েম্বলিতে হবে সেয়ানে সেয়ানে টক্কর।

দু’দলের সবশেষ মুখোমুখি হওয়া ম্যাচগুলোর ফলাফল ঘাঁটলে দেখা যাবে কেউ কারো চেয়ে পিছিয়ে নেই। দু’দল সবশেষ মুখোমুখি হয় ২০১৩ সালে। ব্রাজিলের মাঠে ওই ম্যাচটি ২-২ গোলে ড্র হয়। আর ওই বছরের শুরুর দিকে নিজেদের মাঠে ব্রাজিলকে ২-১ গোলে হারায় ইংল্যান্ড।

২০০৯ সালে ইংল্যান্ডের মাঠ থেকে ১-০ গোলের জয় নিয়ে ফেরে ব্রাজিলিয়ানরা। এর আগে ২০০৭ সালে দু’দলের মুখোমুখি ম্যাচটি ১-১ সমতায় শেষ হয়। ২০০২ বিশ্বকাপে মুখোমুখি হয়েছিল ব্রাজিল ও ইংল্যান্ড। ওই ম্যাচে সেলেকাওদের কাছে ২-১ গোলে হারে ইংলিশরা। সবশেষ ৫ ম্যাচের মধ্যে ২টিতে জিতেছে ব্রাজিল। ১টিতে ইংল্যান্ড। বাকি দুটি হয়েছে ড্র।

ফুটবল বিশ্লেষকরা বলছেন, দিনটি হবে নিজেদের মাঠে ইংল্যান্ডের শ্রেষ্ঠত্ব দেখানোর। আর ব্রাজিলের চ্যালেঞ্জ বিশ্বকাপের জন্য নিজেদের কতটা প্রস্তুত করে এগিয়ে যেতে পারে তা দেখানোর। কোচ তিতের জন্যও চ্যালেঞ্জ অপেক্ষা করছে। নেইমার-জেসুসদের দায়িত্ব নেয়ার পর ১টি ম্যাচ ছাড়া পরাজয়ের স্বাদ নেননি তিনি। তা ধরে রাখায় হবে তার জন্য বড় পরীক্ষা।

বাংলাদেশ সময়ঃ ১৪৫৫ ঘণ্টা, ১৪ নভেম্বর, ২০১৭

লেটেস্টবিডিনিউজ.কম/এস

SHARE