‘ভূতের সরকারের অধীনে নির্বাচন করতে চান খালেদা’

আসছে জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সমালোচনা করে তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু বলেছেন, ‘খালেদা জিয়া শেখ হাসিনার অধীনে নির্বাচনে যেতে চান না। তিনি সংবিধান লঙ্ঘন করে ‘ভূতের সরকারের’ অধীনে নির্বাচন করতে চান।’

শেখ হাসিনার অধীনে নির্বাচন না করাকে সংবিধানের অধীনে নির্বাচন না করার শামিল বলেও উল্লেখ করেন তিনি। মঙ্গলবার (১৪ নভেম্বর) সচিবালয়ে এক ব্রিফিংয়ে গত ১২ নভেম্বর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে খালেদা জিয়ার দেয়া বক্তব্যের সমালোচনা করে তথ্যমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

জনপ্রিয়তা থাকলে নিরপেক্ষ নির্বাচন দেয়ার আহ্বান জানিয়ে ও হাসিনার অধীনে কোনওভাবেই নির্বাচন হবে বলে সোহরাওয়ার্দীর সমাবেশে খালেদা জিয়া যে বক্তব্য দিয়েছিলেন তারই প্রতিক্রিয়ায় সংবাদ সম্মেলনে হাসানুল হক ইনু বলেন, ‘খালেদা জিয়া বাংলাদেশকে সংঘর্ষের দিকে অস্বাভাবিক পথে ঠেলে দেওয়ার চক্রান্তের জাল বুনছেন।’

সাংঘর্ষিক পরিস্থিতি হলে কিভাবে মোকাবেলা করবেন-সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে ইনু বলেন, ‘সাংবিধানিক এবং গণতান্ত্রিক কাঠামোর মধ্য দিয়ে যেভাবে অতীতে মোকাবেলা করেছি ঠিক একই পদ্ধতিতে সাংঘর্ষিক পরিস্থিতি মোকাবেলা করে যথাসময়ে নির্বাচন অনুষ্ঠানের ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।’

মন্ত্রী বলেন, ‘২০০৮ সালের পর থেকে বেগম খালেদা জিয়া যে অস্বাভাবিক রাজনীতির পথ অনুসরণ করেছেন সেই অস্বাভাবিক রাজনীতি এখনও অনুসরণ করে চলেছেন। তিনি মোটেও বদলাননি, শোধরাননি।’

সমাবেশে সশস্ত্র বাহিনী বা সেনা মোতায়েনের বক্তব্যের মধ্য দিয়ে খালেদা জিয়া ষড়যন্ত্রের আভাস দিয়েছেন বলে দাবি করেন হাসানুল হক ইনু। তিনি বলেন, ‘সমাবেশে তিনি সেনাবাহিনী সম্পর্কে কথা বলেছেন। অথচ অতীতে কোনো দিনই সেনাবাহিনীর ম্যাজিস্ট্রেসির ক্ষমতা ছিল না। আমি এর ভেতরেও একটি ষড়যন্ত্রের বিষয় লুকোনো দেখছি।’

বাংলাদেশ সময়: ১৭০০ ঘণ্টা, ১৪  নভেম্বর  ২০১৭

লেটেস্টবিডিনিউজ.কম/কেএসপি

SHARE