পাকিস্তানের ‘গলার কাঁটা’ হয়ে দাঁড়িয়েছেন আরেক ‘পাকিস্তানি’

গতকাল চতুর্থ দিনের খেলা শেষ হওয়ার সময় মনে হচ্ছিল, দুবাই টেস্টে পাকিস্তানের জয় সময়ের ব্যাপার মাত্র। কারণ চতুর্থ দিনেই তিন উইকেট হারিয়ে ফেলেছিল অস্ট্রেলিয়া। ড্র করতে হলে টেস্টের পুরো পঞ্চম দিন কাটিয়ে দিতে হবে বাকি সাত উইকেট নিয়ে। আর জিততে হলে পঞ্চম দিনে করতে হবে ৩২৫ রান। দুটিকেই অসম্ভব মনে হচ্ছিল।

এখন মনে হচ্ছে, অসম্ভব মনে করা কাজটা সম্ভব হলে হয়েও যেতে পারে! দুবাইয়ে পাকিস্তানের জয়ের সামনে বুক চিতিয়ে দাঁড়িয়ে গেছেন আরেক ‘পাকিস্তানি’। পাকিস্তানের সামনে আরেক পাকিস্তানি? ব্যাপারটা ঘোলাটে মনে হলেও সত্যি।

অস্ট্রেলিয়ার ওপেনিং ব্যাটসম্যান উসমান খাজার জন্ম পাকিস্তানের ইসলামাবাদে। ছোটকাল কেটেছে পাকিস্তানেই। তারপর অস্ট্রেলিয়ার নিউ সাউথ ওয়েলসের বাসিন্দা হয় তার পরিবার। সেই সূত্রেই খাজা এখন অস্ট্রেলিয়ার। অনেক চড়াই উৎরাই পেরিয়ে অস্ট্রেলিয়া দলে উঠে এসেছেন খাজা। ২০১০-১১ মৌসুমে প্রথম মুসলিম ক্রিকেটার হিসেবে অস্ট্রেলিয়ার হয়ে অ্যাশেজ খেলেছেন তিনি। খাজাকে নিয়ে এবার পাকিস্তানের বিপক্ষে টেস্ট খেলতে এসেছে অস্ট্রেলিয়া।

খাজাও এসে জন্মভূমির বিপক্ষে দাঁড়িয়ে গেলেন। পাকিস্তান-অস্ট্রেলিয়া মধ্যকার দুবাই টেস্টের প্রথম ইনিংসে করেছিলেন ৮৫ রান। যা অস্ট্রেলিয়ার প্রথম ইনিংসের সর্বোচ্চ। দ্বিতীয় ইনিংসে আজ সেঞ্চুরিই তুলে নিলেন খাজা।

পাকিস্তান যখন দুবাইয়ে সহজ জয়ের হিসেব কষছিল তখন দুর্দান্ত এক সেঞ্চুরি তুলে নিয়ে অস্ট্রেলিয়াকে বাঁচানোর আপ্রাণ চেষ্টা করে যাচ্ছেন খাজা। চতুর্থ দিন ফিফটি করে অপরাজিত থাকা খাজা এই মুহূর্তে ২৫৮ বল খেলে ১১২ রানে অপরাজিত। পাকিস্তানি স্পিন ও পেস আক্রমণ সামলে এক প্রান্ত থেকে অস্ট্রেলিয়াকে টানছেন। বলা যায়, রীতিমতো পাকিস্তানের গলার কাঁটা হয়ে দাঁড়িয়েছেন খাজা।

এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত পঞ্চম দিনের প্রায় দেড় সেশন খেলা শেষ হয়েছে। অর্থাৎ আর দেড়টা সেশন কাটিয়ে দিতে পারলেই পাকিস্তানের জয়ের স্বপ্ন শেষ। হার এড়াতে পারবে অস্ট্রেলিয়া। পারবেন কী খাজা? এটার ভালো উত্তর দিতে পারবেন হয়তো অস্ট্রেলিয়ার অপরাজিত ব্যাটসম্যানরা। এই মুহূর্তে অজিদের স্কোর ২৭৯/৫। অর্থাৎ খাজাসহ এখনো পাঁচ উইকেট সফরকারীদের হাতে। পাঁচ উইকেট নিয়ে দেড়টা সেশন কাটিয়ে দেওয়া যেতেই পারে!

লেটেস্টবিডিনিউজ.কম/কেএস