খিলক্ষেতে গৃহবধূর মরদেহ, স্বামী পালাতক

রাজধানীর খিলক্ষেতের বোটঘাট নামাপাড়া এলাকায় এক গৃহবধূকে হত্যা করা হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। হত্যার পর থেকে গৃহবধূর স্বামী পিন্টু ইসলাম পালাতক রয়েছেন বলেও জানা গেছে। নিহতের নাম রিনা আক্তার (৩২)। রবিবার রাতের কোন এক সময় হত্যাকাণ্ডটি ঘটেছে বলে পুলিশের ধারণা। আজ সোমবার দুপুরে ময়নাতদন্তের জন্য নিহত ওই গৃহবধূর লাশ উদ্ধার করে পুলিশ ঢাকা মেডিকেলের মর্গে পাঠিয়েছে।

খিলক্ষেত থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি-তদন্ত) এবিএম আসাদুজ্জামান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, নিহত রিনার বাড়ি নেত্রকোনার মোহনগঞ্জে। একমাস আগে থেকে স্বামী পিন্টু ইসলামের (৪০) সঙ্গে তিনি খিলক্ষেতে ওই ভাড়া বাসায় বসবাস করে আসছিলেন। রিনা তার স্বামী ও এক সন্তান নিয়ে ওই বাসায় ভাড়া থাকতেন। এ ঘটনার সময় তাদের সন্তান বাসায় ছিল না। ধারণা করা হচ্ছে রিনাকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়েছে।

সোমবার সকালে তাকে ঘুম থেকে উঠতে না দেখে প্রতিবেশীরা ডাকাডাকি করে। পরে জানালা দিয়ে গলায় কাপড় প্যাঁচানো এবং নাক-মুখ দিয়ে রক্ত ঝরা তার নিথর দেহ বিছানায় পড়ে থাকতে দেখে পুলিশে খবর দেয় এলাকাবাসী। ঘটনার পর থেকেই স্বামী পলাতক। এ কারণে পুলিশ ও এলাকাবাসীর ধারনা স্ত্রীকে খুন করে পালিয়েছেন পিন্টু ইসলাম।