বিদেশ যাওয়ার অনুমতি পেলেন মান্না

মান্নাকে তিন মাসের জন্য বিদেশ যাওয়ার অনুমতি দিয়েছেন দেশের সর্বোচ্চ আদালতের আপিল বিভাগ।

নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্নাকে তিন মাসের জন্য বিদেশ যাওয়ার অনুমতি দিয়েছেন দেশের সর্বোচ্চ আদালতের আপিল বিভাগ। তবে বিদেশ থেকে ফেরার তিন সপ্তাহের মধ্যে ঢাকার মুখ্য মহানগর হাকিম আদালতে তাকে পাসপোর্ট জমা দিতে বলা হয়েছে।

পাসপোর্ট ফেরত চেয়ে মান্নার করা এক আবেদনের শুনানি নিয়ে আজ সোমবার প্রধান বিচারপতির সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বাধীন চার সদস্যের আপিল বিভাগ এই আদেশ দেন।

আদালতে মান্নার পক্ষে ছিলেন আইনজীবী ইদ্রিসুর রহমান। সঙ্গে ছিলেন আইনজীবী এম মনজুর আলম। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন অতিরিক্ত অ্যাটর্নি জেনারেল মুরাদ রেজা।

পরে ইদ্রিসুর রহমান বলেন, মান্নার বিরুদ্ধে থাকা দুটি মামলায় তিনি জামিনে আছেন। জামিনের শর্তে আছে, তার পাসপোর্ট জমা রাখতে হবে। এ অবস্থায় নিজের ছেলেমেয়েকে দেখতে কানাডা যাওয়া এবং নিজের চিকিৎসার জন্য যুক্তরাজ্যসহ অন্য দেশে যাওয়ার কথা। তাই পাসপোর্ট ফেরত চেয়ে ৫ মে আবেদন করেন মান্না। আবেদনের শুনানি নিয়ে আজ আদালত আদেশ দেন।

উল্লেখ্য, রাষ্ট্রদ্রোহ ও সেনাবিদ্রোহে উসকানির অভিযোগে ২০১৫ সালের ২৪ ফেব্রুয়ারি ও ৫ মার্চ গুলশান থানায় মান্নার বিরুদ্ধে পৃথক মামলা হয়। নিউইয়র্কে অবস্থানরত বিএনপি নেতা সাদেক হোসেন খোকা এবং অন্য এক ব্যক্তির সঙ্গে মান্নার টেলিফোন আলাপের অডিও ক্লিপ প্রকাশের পর ওই বছরের ২৫ ফেব্রুয়ারি মান্নাকে গ্রেপ্তার করা হয়। পরে তিনি জামিনে মুক্তি পান।