ক্ষমা চাইলেন মার্ক জাকারবার্গ

ফেইসবুকের প্রধান নির্বাহী মার্ক জাকারবার্গ ইহুদি বর্ষের পবিত্র দিন ইওম কিপুর উপলক্ষ্যে দেওয়া এক বার্তায় ‘বিভক্তি তৈরি’র জন্য ক্ষমা চেয়েছেন। এ দিনটিতে ভাগ্যের সুরক্ষায় পাপমোচনের জন্য ঈশ্বরের কাছে ক্ষমা চান ইহুদিরা।

ফেইসবুকে একটি পোস্টের মাধ্যমে নিজের বক্তব্য তুলে ধরেন জাকারবার্গ। তিনি লিখেছেন, ‘মানুষকে কাছে আনার পরিবর্তে যেভাবে আমার কাজকে ব্যবহার করা হয়েছে বিভক্তি তৈরির উদ্দেশ্যে, সেজন্য আমি ক্ষমাপ্রার্থী। আমি এরপর থেকে সবার ভালোর জন্য কাজ করবো।’

২০১৬ সালে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের কয়েক দিন পর জাকারবার্গ বলেছিলেন, তাঁর প্রতিষ্ঠান মার্কিন নির্বাচনের ফলাফলে প্রভাব ফেলেছে-এ কথা ভাবা পাগলামি। তারপর থেকেই তাঁকে ওই চিন্তার মোড় ঘুরাতে হয়েছে এবং এবারের ইয়োম কিপুরের দিনে এ বছর যাঁরা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন, তাঁদের কাছে ক্ষমা চেয়েছেন। ভবিষ্যতে আরও উন্নত সেবা দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন।

কিছুদিন আগেই ফেইসবুককে তার ‘বিরোধী পক্ষ’ হিসেবে আখ্যা দিয়ে টুইট করেছিলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

ট্রাম্পের টুইটের জের ধরে গত সপ্তাহেই জাকারবার্গ জানিয়েছিলেন নির্বাচনের সময় বিভিন্ন মহল থেকে কোটি কোটি ডলার ঢালা হয়েছিলো প্রচারণার পেছনে। এরমধ্যে তিন হাজারেরও বেশি ‘সমস্যাযুক্ত’ বিজ্ঞাপন ও ৪৭০ টি ফেইক অ্যাকাউন্টের অস্তিত্ব পেয়েছে ফেইসবুক, যেগুলোর মাধ্যমে নির্বাচনে প্রভাব ছড়ানোর অভিযোগ এসেছে। খবর বিজনেস ইনসাইডার ও রয়টার্স।

জাকারবার্গ আগামী বছরগুলোতে ফেসবুককে আরও উন্নত করতে কাজ করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন।

প্রযুক্তিবিষয়ক ওয়েবসাইট টেকক্রাঞ্চের ভাষ্য, ভুয়া তথ্য ফেসবুকে যাতে বেশি না ছড়ায়, তা ঠেকাতে প্রচেষ্টা বাড়াতে হবে ফেসবুককে। অন্যান্য সামাজিক যোগাযোগের ওয়েবসাইটগুলো নিজেদের নিরপেক্ষ বললেও আদতে তা প্রশ্নবিদ্ধ। জাকারবার্গ নিজে তাঁর সদিচ্ছার কথা বললেও ফেসবুকে তার প্রতিফলন দেখার প্রত্যাশা করেন এর ব্যবহারকারীরা।

বাংলাদেশ সময়: ১৩৪০ ঘণ্টা, ০৩ অক্টোবর, ২০১৭
লেটেস্টবিডিনিউজ.কম/নীল