ফ্রান্সের নিজ শহরে হত্যার হুমকি পেলেন এমবাপ্পে

ফ্রান্সের নিজ শহরে হত্যার হুমকি পেলেন এমবাপ্পে

হত্যার হুমকি দেয়া হয়েছে বিশ্বকাপজয়ী সুপারস্টার কিলিয়ান এমবাপ্পেকে। এক শিশুকে অনলাইনে নিগ্রহ করার প্রতিবাদ জানিয়ে টুইট করার পর পিএসজির এই তারকাকে এই হুমকি দেওয়া হয়।

এতে ফরাসি এক সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, বন্ডি শহরে এমবাপ্পের ম্যুরালে গ্রাফিতি একে বার্তা দেয়া হয়েছে, ‘এমবাপ্পে, তোমার দিন শেষ হয়ে আসছে।’

উল্লেখ্য যে, কামিলে নামের এক ছোট্ট মেয়ে এমবাপ্পের প্রতি ভালোবাসা জানিয়ে সোশ্যাল সাইটে ভিডিও প্রকাশ করে। দুরারোগ্য ব্যধিতে আক্রান্ত মেয়েটি ভিডিওতে এমবাপ্পেকে তার পছন্দের ক্লাব পিএসজিতে থেকে যাওয়ার অনুরোধ জানিয়ে বলেছে, ‘প্যারিস ও ফ্রান্সে আমার মতো লাখো সমর্থক আছে, যারা আপনাকে অনেক ভালোবাসে। দয়া করে প্যারিস সেন্ট জার্মেইয়ে থেকে যান এবং আরও বহুদিন আমাদের স্বপ্ন দেখান। আশা করি পিএসজি ও ফ্রান্স দলে দারুণ একটি বছর কাটাবেন।’ তবে ছোট্ট শিশুটির এই বার্তাও অনেকের পছন্দ হয়নি। তারা সেই ভিডিওর কমেন্টবক্সে কটূক্তি শুরু করে। বিষয়টি দ্রুতই এমবাপ্পের নজরে আসে।

এমবাপ্পে টুইটারে লিখেন, ‘আমার ছোট্ট কামিলে, তোমাকেও নতুন বছরের শুভেচ্ছা। যেভাবে লড়ে যাচ্ছ, লড়ে যাও। তুমি আমাদের জীবন নিয়ে শিক্ষা দিচ্ছ। একটি শিশুর প্রতি এমন বিদ্বেষপূর্ণ মন্তব্য..আমরা তো তলানিতে পৌঁছে যাচ্ছি, আমাদের বিবেক জাগ্রত হোক।’

মূলত এরপরেই কটূক্তিকারীরা ২৩ বছর বয়সী বিশ্বকাপজয়ী তারকার ওপর হামলে পড়ে। শুধু সোশ্যাল সাইটেই নয়, এমবাপ্পের ভাস্কর্যে কেউ হত্যার হুমকি সংবলিত বার্তা লিখে যায়। কিন্তু অনেকের ধারণা রাজনৈতিক কারণও থাকতে পারে। এরই মধ্যে এমবাপ্পের সঙ্গে কয়েকবার দেখা করেছেন বন্ডির মেয়র প্রার্থী সিলভাইন থমাসিন।

চলতি মাসের শেষে শহরটিতে মেয়র নির্বাচন হওয়ার কথা। তার আগে এমবাপ্পের সঙ্গে ঘন ঘন সাক্ষাৎ করাটাকে ‘রাজনৈতিক প্রচারণা’ হিসেবে দেখছে অনেকে। ধারণা করা হচ্ছে, এমবাপ্পেকে থমাসিন বিরোধীরা মৃত্যু হুমকি দিয়েছে।