২৮ বছর পর সিলেট যুগের অবসান

গত ২৮ বছর ধরে বাংলাদেশ সরকারের অর্থমন্ত্রীর দায়িত্বে থাকা সবাই সিলেট অঞ্চলের বাসিন্দা ছিলেন। তবে একাদশ জাতীয় সংসদে গঠিত হতে যাওয়া মন্ত্রিসভায় এর ছেদ ঘটতে যাচ্ছে।

এবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তার নতুন সরকারে অর্থমন্ত্রীর দায়িত্ব দিচ্ছেন আ হ ম মুস্তফা কামালকে। যিনি কুমিল্লার বাসিন্দা।

এবারের নির্বাচনে নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে আওয়ামী লীগ নতুন সরকার গঠন করতে যাচ্ছে। নতুন মন্ত্রিসভা শপথ নেবে আগামীকাল সোমবার। আজ রোববার নতুন মন্ত্রী প্রতিমন্ত্রীদের নাম প্রকাশ করা হয়।

সিলেট অঞ্চলের প্রথম ব্যক্তি হিসেবে এম সাইফুর রহমান ১৯৮০ সালে অর্থমন্ত্রী হন। জিয়াউর রহমানের সরকারে দুই বছর ওই দায়িত্বে ছিলেন তিনি।

এরপর এরশাদের শাসনামল শেষ হলে ১৯৯১ সালে খালেদা জিয়ার সরকারে অর্থমন্ত্রীর দায়িত্বও পান এম সাইফুর রহমান। টানা পাঁচ বছর ওই দায়িত্বে ছিলেন তিনি।

১৯৯৬ সালে আওয়ামী লীগ সরকার গঠন করলে সেবার অর্থমন্ত্রী হন শাহ এ এম এস কিবরিয়া। তার জন্মও সিলেটের হবিগঞ্জ জেলায়।

২০০১ সালে আবার খালেদা জিয়া প্রধানমন্ত্রী হলে সাইফুর রহমানকে পুনরায় অর্থমন্ত্রী করেন। পুরো মেয়াদ সেই দায়িত্বে ছিলেন তিনি।

মাঝের জরুরি অবস্থা পেরিয়ে ২০০৮ সালের নির্বাচনের পর শেখ হাসিনা সরকার গঠনের সময় অর্থমন্ত্রীর দায়িত্ব পান আবুল মাল আবদুল মুহিত। তিনিও সিলেটের বাসিন্দা।
মুহিত তার আগেও অর্থমন্ত্রী হয়েছিলেন এইচ এম এরশাদের সামরিক সরকারে ১৯৮২ সালে। ওই সরকারে থেকে দুটি বাজেট দিয়েছিলেন তিনি।

২০০৯ সালে শপথ নেওয়ার পর একটানা দুই মেয়াদে অর্থ মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব পালনের পর এবার অবসরে যাওয়ার কথা আগেই জানিয়েছিলেন মুহিত। তিনি এবার নির্বাচন করেননি। তার আসন সিলেট-১ এ এবার এমপি নির্বাচিত হয়েই পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব পাচ্ছেন তার ভাই এ কে এ মোমেন।

একাদশ সংসদে অর্থমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিতে যাওয়া মুস্তফা কামাল গত পাঁচ বছর পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বে ছিলেন। রাজনীতিক পরিচয়ের বাইরে ক্রীড়া সংগঠক হিসেবেও পরিচিত তিনি। তিনি ২০০৯ থেকে ২০১৩ সাল পর্যন্ত বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের সভাপতির দায়িত্বে ছিলেন। ২০১৪ সালে তিনি আইসিসির সভাপতিও নির্বাচিত হন।