পুলিশ কর্মকর্তার সঙ্গে বাংলাদেশি তরুণীর বিয়ে হলো ইতালিতে

ইতালির ক্যারাবিয়ান পুলিশ কর্মকর্তা দোমেনিকোকে বিয়ে করেন বাংলাদেশী মেয়ে সুমাইয়ারা

শুরুর দিকে বৈশ্বিক মহামারিতে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত দেশটির নাম ইতালি। প্রাথমিক পর্যায়ে আক্রান্ত, মৃত্যুর হারে বিশ্বের এক নম্বর অবস্থানে থাকা দেশটিতে করোনার প্রভাব কমেছে ঠিকই, কিন্তু শেষ হয়ে যায়নি। তবুও মানুষ আছে স্বাভাবিক জীবনে ফেরার চেষ্টায়। এর মধ্যে বিভিন্ন অনুষ্ঠানের আয়োজন, দিবস পালন ও বিয়ের ঘটনাও ঘটছে। এ প্রতিবেদনটিও বিয়ে নিয়ে। তবে এটি কোনো সাধারণ বিয়ে নয়। মুসলিম রীতি অনুসরণ করেই ইতালির ক্যারাবিয়ান পুলিশ কর্মকর্তা দোমেনিকোকে বিয়ে করেন বাংলাদেশী মেয়ে সুমাইয়ারা। এছাড়াও বিয়ের ৬ মাস আগে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেন ইতালিয়ান ওই ক্যারাবিয়ান পুলিশ কর্মকর্তা।

করোনার মধ্যেও গত সোমবার দুটি ভিন্ন দেশের ভিন্ন ভাষার মানুষ এক হয়েছেন। সামাজিক যোগযোগমাধ্যম ফেসবুকে এ খবর প্রচার হতেই নেটিজেনরা বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত তরুণী সুমাইয়ারা ও ইতালির পুলিশ কর্মকর্তা দোমেনিকো তামবুররিনোকে সাধুবাদ জানাচ্ছেন। আত্মীয়-স্বজনের পাশাপাশি সমাজের বিভিন্ন স্তরের মানুষও তাদের দুজনকে শুভেচ্ছা জানাচ্ছেন।

ইতালির তুরিন সিটির পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটে অধ্যয়নরত অবস্থায় বছরখানেক আগে পুলিশ কর্মকর্তা দোমেনিকো তামবুররিনোর সঙ্গে সুমাইয়ারার পরিচয় হয়। ইতালির প্রাচীনতম রাজধানী তোরিনোতে শুরু হয় তাদের মধ্যে ভালোলাগা ও ভালোবাসার। সেই নগরীতেই দুজন বিয়ের বন্ধনে আবদ্ধ হন।

সোমবার তাদের বিয়ের অনুষ্ঠান হয় দক্ষিণ ইতালির কাম্পানিয়া বিভাগের সালের্নো প্রভিন্সের মাইওরি পৌর এলাকায়। করোনার মধ্যে কিছুটা ভয় কাজ করলেও সুমাইয়ারা-দোমেনিকোর বিয়ের অনুষ্ঠানে আয়োজনের কোনো কমতি ছিল না। অনুষ্ঠানে লাল রঙের শাড়ি পরেন সুমাইয়ারা, নিজের ইউনিফর্ম পরে আসেন দোমেনিকো। বিয়ের অনুষ্ঠানে দোমেনিকোর পরিবারের সবাই উপস্থিত ছিলেন। তবে করোনার কারণে বাংলাদেশ-ইতালির ফ্লাইট বন্ধ থাকায় সুমাইয়ারার পরিবারের কেউ বিয়েতে অংশগ্রহণ করতে পারেনি।