আইপিএল ছাড়ছেন সাকিব!

বিশ্বকাপের প্রস্তুতি হিসেবে সাকিব আল হাসান বেঁছে নিয়েছিলেন ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগকে (আইপিএল)। কিন্তু সানরাইজার্স হায়দরাবাদের জার্সিতে চলতি মৌসুমে মাঠে নামারই সুযোগ পাচ্ছেন না এ বাঁহাতি। যে কারণে নিজেকে ঠিক মেলে ধরতে পারছেন না তিনি। আর তাই বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) ভাবছে টাইগার টেস্ট ও টি-টোয়েন্টি অধিনায়ককে দেশে ফিরিয়ে ইংল্যান্ড বিশ্বকাপের অনুশীলনে ব্যস্ত রাখতে। 

আইপিএলের বিগত আসরগুলোতে সাকিব আল হাসান যে দলের হয়েই খেলেছেন সেই দলেরই মধ্যমণি হয়ে ছিলেন। অথচ এবার যেন তার আইপিএলের কপালে সুসময় নেই। তার দল হায়দরাবাদে ইতোমধ্যে খেলেছে পাঁচটি ম্যাচ, সাকিব মাঠে নেমেছেন মাত্র একটিতে। কিন্তু সে ম্যাচে বল হাতে নিজেকে মেলে ধরতে পারেননি এ বাঁহাতি। উল্টো শেষ ওভারে ম্যাচ হারান তিনি। যে কারণে আপাতত সাবেক আইপিএল চ্যাম্পিয়নদের হয়ে আর মাঠে নামার সুযোগ পাচ্ছেন না তিনি। 

শনিবার বাংলাদেশ ক্রীড়া লেখক সমিতির অনুষ্ঠানে সাকিবকে দেশে ফিরিয়ে আনার আভাস দেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন। তিনি জানান, ২০ এপ্রিলের মধ্যে সাকিবকে দেশে ফিরিয়ে এনে বিশ্বকাপের প্রস্তুতি ক্যাম্পের শুরু থেকেই যুক্ত রাখা হবে দলের সাথে, ‘বিশ্বকাপ যেহেতু ৫০ ওভার, টি-টোয়েন্টির সঙ্গে তাই এর বড় পার্থক্য। তবে আইপিএলে ও যদি খেলার মধ্যে থাকত, ম্যাচ প্র্যাকটিস ওর জন্য বড় একটা ফ্যাক্টর হতো।’

আইপিএল শুরুর আগে সাকিব ছিলেন মাঠের বাইরে। চোটের কারণে খেলতে পারেননি নিউজিল্যান্ড সিরিজেও। প্রিমিয়ার লিগে না খেলে আইপিএলে গিয়েও সুযোগ পাচ্ছেন না খেলার। তাই সাকিবকে দেশে ফিরিয়ে আনাই ভালো হবে বলে মনে করেন বোর্ড সভাপতি, ‘ও যেহেতু একটা লম্বা গ্যাপে ছিল, আমাদের ধারণা ছিল ও ম্যাচ প্র্যাকটিসে থাকলে ওটা ওর জন্য কাজে দেবে।’

হায়দরাবাদে এবার তারকা বিদেশি ক্রিকেটারের ছড়াছড়ি। সুযোগ পেয়ে সবাই দারুণ খেলছেন। যে কারণে সাকিবকে বসে থাকতে হচ্ছে মাঠের বাইরে। আর তাই বিসিবি সভাপতি চাইছেন, টাইগার অলরাউন্ডার ফিরে আসুক দেশে, ‘যেহেতু টিম কম্বিনেশনের কারণে খেলা হচ্ছে না তার (সাকিবের), সে ক্ষেত্রে আমি মনে করি আমাদের যখনই ক্যাম্প শুরু হবে, সঙ্গে সঙ্গেই তাকে ফেরত নিয়ে আসাটাই ভালো হবে।’