গান দিয়েই দর্শকদের মন ছুঁয়ে দিতে চাই: তানিয়া হাসান

শামিনা আলম তানিয়া। তবে তানিয়া হাসান নামেই তাকে চেনে সবাই। গানের পথ চলা শুরু সেই ৬ বছর বয়স থেকেই। দেশের বিভিন্ন অঞ্চল ঘুরে কনসার্ট করতে দেখা যায় এই তরুণ শিল্পীকে। বরিশালের মেয়ে তানিয়া। মা খুরশিদা সুলতানা বাংলাদেশ বেতারের স্বনামধন্য শিল্পী, বাবাও লেখালেখি করেন। তাই পারিবারিক ভাবেই তার গানের পথে চলা। তার বর্তমান ব্যস্ততা, বাংলা গানের হালচাল, নতুন প্রজন্মের গানের চাহিদা নিয়ে তার সাথে কথা বলেছেন রফিকুল ইসলাম রবি।

তানিয়া হাসান: ভালো আছি। আপনি ?
রফিকুল ইসলাম রবি: ভালো অাছি। আপনার বর্তমান ব্যস্ততা সম্পর্কে একটু জানান।
তানিয়া হাসান: বর্তমানে সঙ্গীত চর্চা আর সংসার নিয়ে ব্যস্ত আছি। দেশের বিভিন্ন অঞ্চল ঘুরে স্টেজ পারফর্মেন্স করছি। সব শ্রেনীর দর্শকদের ভালোবসা নিয়েই প্রতিনিয়ত পথ চলছি।

রফিকুল ইসলাম রবি: গানের জগতে আসার শুরুর গল্পটা।
তানিয়া হাসান: গানের পথ চলা শুরু সেই ৬ বছর বয়স থেকেই।ছোট বেলায় বাবা-মাকে গান করতে শুনেছি।জন্ম থেকে গানের পরিবারে বড় হওয়া। বাবা শাহ্ আলম খসরু একজন লেখক। বাবা সাহিত্য ও সংগীত চর্চা করে থাকেন। তার কাছে গানের প্রথম হাতে খড়ি। মা খুরশীদা সুলতানা লালন গীতির একজন শিল্পী। তার কাছে লালনের গানের তালিম নেওয়া। এইভাবে যাএা শুরু গানের জগতের।

রফিকুল ইসলাম রবি: কি ধরনের গান গাইতে আপনার বেশি ভালো লাগে ?
তানিয়া হাসান: নজরুল গীতি বেশি পছন্দ করলেও সব ধরনের গান গাইতে পারি। স্টেজে দর্শকদের রুচি অনুযায়ী গান পরিবেশন করতে হয়। অনেক সময় অনেক গানের অনুরোধ থাকে দর্শকদের কাছ থেকে। তাই সব ধরনের গানই গাওয়া হয়।স্টেজে কেমন গাই, বাকিটা আমার দর্শক- শ্রোতারা বলতে পারবেন। তবে তারা ভালোবাসেন বলেই গান গেয়ে যাই।

রফিকুল ইসলাম রবি: আপনার গানের অ্যালবাম নিয়ে কিছু বলেন।
তানিয়া হাসান: আমার মিল্টন খন্দকারের কথায় আর রবিনের মিউজিকে প্রথম সিডি অ্যালবাম বের হয়েছে। তবে মিউজিক ভিডিও না করাতে তেমন প্রচার হয়নি। তবে আমার প্রথম অ্যালবামের মধ্যে ‌’যদি একবার বলো’ , ‘মনতো মানেনা’, পিরিতি পিরিতিসহ বেশ কয়েকটি গান ইউটিউবে পাওয়া যায়। দর্শকরা ইউটিউব থেকে উপভোগ করতে পারেন। ক্লোজআপ তারকা রাজীব এর সাথে ডুয়েট এ্যালবাম করেছি। আমি আসলে ধীরে চলো নীতিতে চলার চেষ্টা করছি।

রফিকুল ইসলাম রবি: দর্শকরা কি আপনার নতুন কোন অ্যালবাম পাচ্ছেন ?
তানিয়া হাসান: হ্যা, দর্শকরা খুব শীঘ্রই নতুন মিউজিক ভিডিও পাচ্ছেন।নতুন অ্যালবাম তারেক তুহিন ভাইয়ের কথায় লেলিন ভাইয়ের মিউজিকে কম্পোজ করেছি। ১২ টি গানের কাজ শেষ হয়েছে। মিউজিক ভিডিও নির্মাণের কাজ চলছে । খুব শীঘ্রই এটি বাজারে আসবে । আশা করি, দর্শকরা তাদের রুচিশীল কোন মিউজিক ভিডিও পাবেন। দর্শকদের ভালো লাগবে এমনটাই প্রত্যাশা।

রফিকুল ইসলাম রবি: আপনার ভবিষৎ পরিকল্পনা কি ?
তানিয়া হাসান: ভবিষৎতে গানের মাধ্যমে নিজের অবস্থান দৃঢ় করার পরিকল্পনা আছে। গানের মাধ্যমেই মানুষের মনে স্থান করে নিতে চাই।দর্শকদের চাহিদা অনুযায়ী গান গাওয়ার চেষ্টা করি। আশা করি, দর্শকরাও তাদের মনে আমায় স্থান করে নিবেন।

রফিকুল ইসলাম রবি: একটু অন্য প্রসঙ্গে যাই। একজন তরুণ শিল্পী হিসেবে বর্তমান প্রজন্মের বাংলা গানের চর্চাকে কিভাবে দেখছেন?
তানিয়া হাসান: আগের সেই গান এখন আর কেউ লিখে না। তাই কিছুদিন পর তা আর কেউ মনে রাখে না। কিন্তু আগেরকার গানের কথা সুর এতো প্রাণবন্ত ছিল যে, তা আজও চীর অম্লান হয়ে বেঁচে আছে এবং থাকবে।
বর্তমান প্রজন্ম গানের রুচিশীলতার জায়গা থেকে ভিন্নমুখী হচ্ছে। অশ্লীল ভিডিও’র হিন্দি গান, এর জন্য অনেকাংশে দায়ী।ফলে বর্তমান প্রজন্মরা সেই দিকে ঝুঁকে পড়ছে, তাই বাংলা গান এতো পিছিয়ে আছে।

রফিকুল ইসলাম রবি: তাহলে দোষটা মূলত কার ঘাড়ে যাবে ? প্রজন্মের রুচিশীলতার নাকি সিস্টেমের ?
তানিয়া হাসান: ভালো’র দিকে নজর না দিয়ে খারাপের দিকে ঝুঁকছে সবাই।আমি মনে করি, ভালো-মন্দের দিকটা যেহেতু সবাই বোঝে। তবে নিজ দায়িত্বে বুঝা উচিত কোনটা ভালো। তাই সিস্টেমের দোষ না দেওয়াই ভাল
যে, শত খারাপের মাঝেও নিজেকে ভালো রাখতে পারে, তবে সেই আসল ভালো।

রফিকুল ইসলাম রবি: তবে লক্ষ্য করা যায়, যুগের চাহিদার উপর ভর করে সবাই উপস্থাপিত হচ্ছে। মঞ্চেও এমনটাই লক্ষ্য করা যাচ্ছে। এ নিয়ে নানা প্রশ্নও আছে। এটাকে কিভাবে দেখছেন?
তানিয়া হাসান: যেহেতু আমরা বর্তমান যুগে বাস করছি, সেহেতু যুগের সাথে তাল মিলিয়ে চলতে আমরা বাধ্য। তাই যে যেভাবে যতটুকু শালীনতা বজায় রেখে তাল মিলিয়ে চলতে পারে, সেটা তার জন্য ভালো।

রফিকুল ইসলাম রবি: এই অাগ্রাসন কি বাংলা গানের সংস্কৃতিকে দিন দিন প্রজন্মের কাছে থেকে কেড়ে নিচ্ছে না তো ?
তানিয়া হাসান: নিতে যাচ্ছে, কিন্তু যারা বাংলা গানকে ভালবাসেন তারা চীরকালই বাসবেন।

রফিকুল ইসলাম রবি: প্রযুক্তির কল্যানে মানুষ কি এখন স্টেজ বিমুখ?
তানিয়া হাসান: না, সবাই সরাসরি কনসার্ট দেখতে বেশী পছন্দ করেন।

রফিকুল ইসলাম রবি: ধন্যবাদ আপনাকে।
তানিয়া হাসান: আপনাকেও ধন্যবাদ।

বাংলাদেশ সময়: ১১৫৮ ঘণ্টা, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৭
লেটেস্টবিডিনিউজ.কম/এসএফ