গুলশান-বনানীর রেস্তোরাঁর এ কি হাল!

পচা গন্ধ ও নোংড়া পরিবেশ। এর মধ্যেই বিভিন্ন ধরনের খাবার তৈরি হচ্ছে। সেই খাবার বিলি করা হচ্ছে রেস্তোরাঁয়। রেস্তোরাঁর সামনের পরিবেশের সঙ্গে ভেতরের যেন কোনো মিল নেই। রাজধানীর গুলশান ও বনানীর এলাকার রেস্তোরাঁর এমন চিত্র!

নোংড়া পরেবেশে খাবার তৈরি ও মেয়াদহীন খাবার বিক্রি করায় রাজধানীতে একাধিক রেস্তোরাঁর মালিককে জরিমানা করা হয়েছে। গতকাল বুধবার গুলশান ও বনানীতে অবস্থিত রেস্তোরাঁয় অভিযান চালিয়ে দুই লাখ টাকা জরিমানা করেন জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের ঢাকা বিভাগীয় কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক শাহনাজ সুলতানা।

আজ বৃহস্পতিবার ভোক্তা অধিকার থেকে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, নোংড়া পরিবেশে অবৈধ প্রক্রিয়ায় খাবার তৈরি করছিল ‘সালিমার গার্ডেন রেস্টুরেন্ট’। সেখানে অভিযান চালিয়ে ভোক্তা অধিকারের ৪৩ ধারায় ওই রেস্তোরাঁর মালিককে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। এই অপরাধে ‘ঘরোয়া হোটেল অ্যান্ড রেস্টুরেন্ট’র মালিককে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে আরো জানানো হয়, মেয়াদ উত্তীর্ণ খাবার বিক্রি করায় ভোক্তা অধিকারের ৫১ ধারায় ‘হোসেন বেকারি অ্যান্ড কনফেকশনারি’র মালিককে ২০ হাজার এবং ‘কোল্ড স্টোন ক্রিমি শপ’র মালিককে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।একই সঙ্গে ‘কোল্ড স্টোন ক্রিমি শপ’ এ পণ্যের মোড়কে উৎপাদনের মেয়াদ না থাকায় আরো ৩০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, জরিমানা করা রেস্তোরাঁগুলোর খাবার তৈরির ঘরে প্রবেশ করতেই এক ধরনের দুর্গন্ধ আসে।সেখানে কয়েক দিনের বাসি খাবারও রাখা আছে। নোংড়া পরিবেশ হওয়ায় মশা-মাছি উড়ছে।

বাংলাদেশ সময়: ১৫০৫ ঘণ্টা, ২১  ডিসেম্বর, ২০১৭

লেটেস্টবিডিনিউজ.কম/কেএসপি