শরীয়তপুরে চলন্ত ফেরিতে আগুন লেগে কেবিন ক্ষতিগ্রস্ত

শরীয়তপুরে চলন্ত ফেরিতে আগুন লেগে কেবিন ক্ষতিগ্রস্ত
শরীয়তপুরের মাঝিকান্দি চ্যানেলে ক্ষতিগ্রস্ত ফেরি ‘বেগম রোকেয়া’ - সংগৃহীত ছবি

পদ্মা নদীতে চলন্ত ফেরিতে আগুন লেগে একটি কেবিন ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। আজ শনিবার (১১ জুন) ভোর সোয়া ৫টার দিকে ফেরি ‘বেগম রোকেয়া’ শরীয়তপুরের মাঝিকান্দি চ্যানেলে প্রবেশ করতেই আগুন লাগার ঘটনা ঘটে। এর আগে ভোর পৌনে ৫টায় ফেরিটি মুন্সীগঞ্জের শিমুলিয়া ঘাট থেকে মঙ্গল মাঝির ঘাটের উদ্দেশে ছেড়ে যায়।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, মুন্সীগঞ্জের শিমুলিয়া ঘাট থেকে যানবাহন নিয়ে ছেড়ে যাওয়া ফেরিটি শরীয়তপুরের মাঝিকান্দি চ্যানেলে প্রবেশ করতেই আগুন নজরে আসে। ফেরির পাম্প কাজে লাগিয়ে দ্রুত আগুন নিয়ন্ত্রণে নিয়ে আসায় কোনো হতাহতের ঘটনা ঘটেনি। এসময় যাত্রীদের মধ্যে ছড়িয়ে পড়ে আতঙ্ক। ফেরির চালক দ্রুত চালিয়ে নিয়ে শরীয়তপুরের মাঝিকান্দি ঘাটে ভিড়িয়ে যানবাহন নামিয়ে দেন।

এ ব্যাপারে ফেরির মাস্টার মিন্টু রঞ্জন দাস বলেন, ‘ক্যান্টিনের পাশে কেবিনের ওপরের সিটে আগুন লাগে। এতে ফেরির ওই কেবিনটির বিছানা, সিলিং দরজা ও কেবিনের বাইরের সিলিং ক্ষতিগ্রস্ত হয়। ঘটনার সময় কেবিনে কেউ ছিল না। দরজা খুলতেই আগুন বাইরে চলে আসে।’

শিমুলিয়া ঘাটের বিআইডব্লিউটিসির উপ-মহাব্যবস্থাপক শফিকুল ইসলাম বলেন, ‘চলন্ত বেগম রোকেয়া ফেরির একটি তালাবদ্ধ কেবিন থেকে আগুন ও ধোঁয়া বের হতে থাকে। পরে ফেরিতে থাকা পাম্প ও আগুন নেভানোর মেশিনের সাহায্যে আগুণ নিয়ন্ত্রণ করা হয়। ফেরিটি মাঝিকান্দি ঘাটে গিয়ে আনলোড করেছে। সেটি আবার যাত্রী ও যানবাহন নিয়ে শিমুলিয়া ঘাটে আসারও প্রস্তুতি নিচ্ছে।’

শফিকুল ইসলাম জানান, ওই ফেরিতে ৩৫-৪০টি যান এবং বেশকিছু যাত্রী ছিল। সবাই নিরাপদে গন্তব্যে পৌঁছেছেন। ফেরি সার্ভিস স্বাভাবিক রয়েছে। আগুন লাগার কারণ অনুসন্ধানের চেষ্টা চলছে।