আগুনে পুড়ল মেডিকেলে তৃতীয় হওয়া সেই কাঠুরিয়ার ছেলে সজীবের বাড়ি

এবারের মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষায় জাতীয় মেধায় তৃতীয় স্থান অর্জন করেছেন সজীব চন্দ্র রায়। দরিদ্র কাঠুরিয়া বাবা এবং দিনমজুর মায়ের সন্তান হয়েও এবারের মেডিকেল কলেজে ভর্তি পরীক্ষায় অসামান্য সাফল্য লাভ করে সবাইকে তাক লাগিয়ে দিয়েছিলেন সজীব।

সেই সজীবের পরিবারের মাথা গোঁজার শেষ আশ্রয়টুকুও আগুনে পুড়ে গেছে। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় অগ্নিকাণ্ডে তাদের বাড়িটি সম্পূর্ণ ভস্মীভূত হয়ে যায়। তাদের পাশের একটি বাড়ি থেকে এ অগ্নিকাণ্ডের সূত্রপাত হয়। তাদের বাড়ি দিনাজপুরের বীরগঞ্জ উপজেলার ১১নং মরিচা ইউনিয়নের কাটগড় গ্রামে।

স্থানীয়রা জানান, মঙ্গলবার সন্ধ্যায় ওই গ্রামে সজীবের প্রতিবেশী গোবিন্দ রায়ের বাড়ি থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়। এরপর নিমিষেই আগুন ছড়িয়ে পড়ে এবং মনোধর রায়ের বাড়িতে আগুন লেগে যায়। নিমিষেই মনোধর রায়ের বাড়িটি পুড়ে যায়।

খবর পেয়ে ১১নং মরিচা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আতাহারুল ইসলাম চৌধুরী হেলাল ঘটনাস্থলে ছুটে যান এবং বিষয়টি বীরগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. ইয়ামিন হোসেনকে জানান।

সজীবের বাবা মনোধর রায় জানান, আগুনে তার সর্বস্ব পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। ভস্মীভূত হয়েছে সজীব ও তার বোনের কাগজপত্র ও বই।

উল্লেখ্য, দিনাজপুরের বীরগঞ্জ উপজেলার কাটগড় গ্রামের কাঠুরিয়া মনোধর রায় ও দিনমজুর চারুবালা রায়ের ছেলে সজীব চন্দ্র রায় এবার মেডিকেল কলেজে ভর্তি পরীক্ষায় জাতীয় মেধা তালিকায় তৃতীয় স্থান অধিকার করে।

লেটেস্টবিডিনিউজ.কম/কেএস