সীমান্তে মাইন বসানো হয়নি: বিজিপি

সীমান্তে মাইন বসানোর বিষয়টি অস্বীকার করেছে মায়ানমারের বর্ডার গার্ড, বিজিপি। আজ বৃহস্পতিবার সকালে, রাজধানীর পিলখানায় বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ বিজিবি-এর সদর দপ্তরে আয়োজিত বিজিবি-বিজিপি সিনিয়র পর্যায়ের সীমান্ত সম্মেলনে এ কথা বলা হয়।

এ সময় সীমান্তে মাদক, অস্ত্র, নারী ও শিশু পাচারসহ সবধরনের আন্ত:সীমান্ত অপরাধ প্রতিরোধের লক্ষ্যে সমন্বিত যৌথ টহল নজরদারি বৃদ্ধিতে উভয়পক্ষ যোগাযোগ এবং তথ্য বিনিময়ে সম্মত হয়েছেন। তবে রোহিঙ্গা নির্যাতন প্রসঙ্গে সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তর দিতে অপারগতা প্রকাশ করেছে বিজিপির প্রতিনিধি দল।

এর আগে, গত সোমবার সকাল সাড়ে ৯টায় বিজিবির সদর দপ্তর পিলখানায় বিজিবি ও মিয়ানমারের বিজিপির সিনিয়র পর্যায়ে চার দিনব্যাপী এ সীমান্ত সম্মেলন শুরু হয়। মিয়ানমারের চিফ অব পুলিশ জেনারেল স্টাফ ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মায়ো থানের নেতৃত্বে ১১ সদস্যের মিয়ানমার প্রতিনিধিদল এ সীমান্ত সম্মেলনে যোগ দেন। এছাড়া প্রতিনিধিদলে পুলিশ ফোর্সের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারাও আছেন।

বিজিবির অতিরিক্ত মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. আনিছুর রহমানের নেতৃত্বে ১৫ সদস্যের বাংলাদেশ প্রতিনিধিদল সম্মেলনে অংশ নেয়। বাংলাদেশ প্রতিনিধিদলে বিজিবি’র ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ছাড়াও স্বরাষ্ট্র ও পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, বাংলাদেশ কোস্টগার্ড এবং মাদক নিয়ন্ত্রণ অধিদফতরের কর্মকর্তারা আছেন।

বাংলাদেশ সময়ঃ ১৩৪৪ ঘণ্টা, ১২ জুলাই, ২০১৮
লেটেস্টবিডিনিউজ.কম/পিএস