Home বিবিধ গুজব ও রাজনৈতিক প্রপাগান্ডা ঠেকাবেন কিভাবে

গুজব ও রাজনৈতিক প্রপাগান্ডা ঠেকাবেন কিভাবে

- Advertisement -

আপনার সরলতা – আবেগের সুযোগ নিয়ে মিথ্যা, গুজব ও রাজনৈতিক প্রপাগান্ডা করা হচ্ছে আপনার ফেসবুক ওয়াল/লাইক/শেয়ার ব্যবহার করে। আপনার একটি লাইক/শেয়ার/কমেন্ট মানে ওই মিথ্যাটি কমপক্ষে ১০০ জনের কাছে পৌঁছানো। ওই ১০০ থেকে প্রতি ক্লিকে এক হাজার – এটা জ্যামিতিক হারে প্রসার লাভ করে।

এমন চারটি ছবি কেউ পোষ্ট করেছে এই বলে যে এগুলো আওয়ামী লীগের পার্টি অফিসে আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজে নিহত চার শিক্ষার্থীর। অথচ আসলে ছবিগুলো ওই স্থানেরই না। ছবি গুলির সত্যতা যাচাই করে দেখুন।

- Advertisement -

১। শনিবার দুপুরে ধানমন্ডিতে স্কুল-কলেজের ছাত্রছাত্রীদের উপর সন্ত্রসী হামলার ছবি বলে প্রচার করা হয়েছে । আসলে সেই ছবিটি জানুয়ারি ৪ তারিখে ভারতের জন্মু-=কাশ্মীরের কিশ্তওয়ারে একজন মহিলার মৃত লাশ পাওয়া যায়। সূত্র: the News now, india।

২। শনিবার দুপুরে ধানমন্ডিতে স্কুল-কলেজের ছাত্রছাত্রীদের উপর সন্ত্রসী হামলার ছবি বলে প্রচার করা হয়েছে । আসলে ছবিটি শনিবার গাজীপুর বড়বাড়ি রোডে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত মেডিকেল ছাত্রী ফাতেমা আক্তার মীমের। তার মৃত দেহের একাধিক ছবি ও ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রকাশ করে প্রত্যক্ষদর্শী।

৩। ছবিটি বাংলাদেশে ধর্ষিত স্কুলগামী বালিকার বলে দাবি করা হচ্ছে। আসলে ছবির কিশোরীর মৃহদেহ এই বছর জুলাই মাসে কলকাতার সোনারপুর ও সুভাষগ্রাম স্টেশনের রেললাইনের পাশ থেকে উদ্ধার করা হয়। সূত্র : dailyhunt.in

৪।ছবিটি বাংলাদেশে ধর্ষিত স্কুলগামী বালিকার বলে দাবি করা হচ্ছে। আসলে ছবিটি আরক্কোর তারগিস্ত অঞ্চলে গৃহ নির্যাতনের শিকার এক মহিলার। ফেব্রুয়ারি মাসে মহিলাটিকে নির্যাতনের পরে হত্যা করে তার স্বামী। সূত্র : kifache.com।

তাই যে কোন সংবেদনশীল ছবি/পেজ/স্ট্যাটাস কে লাইক/শেয়ার/কমেন্ট করার আগে খুব সহজে তার সত্যতা যাচাই করে নিন।

কিভাবে করবেন: প্রথমে বের করুন ছবি, পেজ বা স্ট্যাটাসটির উৎসকে। পেজ ভিউ হলে ছবির নিচে বাম দিকে বা অ্যালবাম ভিউ হলে ছবির ডানে উপরে প্রোফাইল পিক আইকনসহ প্রফাইল বা পেজের নাম/লিঙ্ক পাবেন। সেটাতে ক্লিক করে ওই পেজ বা প্রফাইলে গিয়ে তার ওয়াল, অন্যান্য পোষ্ট ও ছবিগুলো দেখুন – সবই যদি একই রকমের হয়, কোন বিশেষ দল বা মতের কোন উদ্দেশ্য নিয়ে করা হয়, বা মানুষকে বিভ্রান্ত করার জন্য বা ঘৃণা ছড়ানোর জন্য করা হয় তহলে বুঝবেন সে প্রপাগান্ডা করছে, তার ছবি/পেজ/স্ট্যাটাস সত্য যাচাই না করে লাইক/শেয়ার/কমেন্ট করবেন না।

ছবির উৎস বের করুন:
আপনার হোম পেজে হঠাৎ দেখলেন একটা মানুষকে নৃশংশভাবে পিটিয়ে মারার ছবি – আবেগঘন ক্যাপশনে দেখলেন ‘ক’ দলের লোক ‘খ’ দলের লোককে পিটিয়ে মারছে বলে সেখানে লেখা রয়েছে। আপনার মনটা ক্ষুব্ধ হয়ে গেল এই অমানবিকতার চাক্ষুষ প্রমাণ দেখে। ক্ষোভ মানেই যুক্তি-বুদ্ধীর বিলোপ – এই দুর্বল মুহুর্তেটাই প্রপাগান্ডাকারী খুজছিল আপনার মনে মিথ্যা করে কারও বিরুদ্ধে ঘৃণা জন্মে দেবার জন্য – কিন্তু ছবি টা কি সত্যি? ক্যাপশনটা যা দাবী করছে তা কি ঠিক? না কি অন্য কোন ঘটনার ছবি এনে মিথ্যা ক্যাপশন জুড়ে দেওয়া হয়েছে?

বের করা খুব সহজ:
যে ছবিটির উৎস বের করতে চান সে ছবিটির উপর মাউস নিয়ে রাইট ক্লিক করুন। রাইট ক্লিক মেনু থেকে ক্রোম ব্রাউজার হলে “copy image URL” বা ফায়ারফক্স হলে “Copy Image Location” সিলেক্ট করুন। এবার গুগল সার্চ পেজে যান [ www.google.com ]। উপরের বার থেকে “Images” সিলেক্ট করুন [অথবা সরাসরি যান http://www.google.com/imghp ]। এবার দেখবেন ইমেজ সার্চ বক্সের ডান দিকে একটি ছোট ক্যামেরার ছবি, ওটাতে ক্লিক করুন। নতুন একটা বক্স খুলবে “Search by image”, এই বক্সে রাইট ক্লিক করে আগে কপি করা ইমেজ লিঙ্কটি “Paste” করুন। দেখবেন যে ছবিটির উৎস বের করতে চাচ্ছেন, ওয়েবে যত যায়গায় সেই ছবিটি আছে তার প্রায় সবগুলো চলে এসেছে। কয়েকটিতে ক্লিক করলেই বুঝবেন ছবিটি আসলে কিসের।

যদি সত্য হয় ভাল, সত্য না হলে ওই প্রপাগান্ডাকারীকে ব্লক করুন – আপনার প্রতিদিনের সঙ্গী ফেসবুক পতাটিকে কলুষিত করার, আপনার সরলতা ও আবেগকে মিথ্যা ও নোংরা রাজনৈতিক কাজে লাগাবার অধিকার কারও নেই। ফেসবুক আমাদের এক অসাধারণ সুযোগ করে দিচ্ছে নিজের কথা বা মিডিয়ার উপেক্ষিত তথ্যা সারা বিশ্বকে জানাবার, আসুন এই সুযোগের অপপ্রয়োগ যারা করছে তাদের সহযোগীতা করা থেকে বিরত থাকি, তাদের প্রতিহত করি।

বাংলাদেশ সময়ঃ ১১২০ ঘণ্টা, ০৫ আগস্ট, ২০১৮
লেটেস্টবিডিনিউজ.কম/কেএস

- Advertisement -