Home জেলার খবর ফেলে গেলেন গর্ভধারিনী, কোলে তুলে নিলেন এক মা

ফেলে গেলেন গর্ভধারিনী, কোলে তুলে নিলেন এক মা

- Advertisement -

পুষ্প বেগমের দুই মেয়ে। একটি ছেলের স্বপ্ন ছিলো বহুদিনের। ১৪ বছর পর সেই স্বপ্নই যেন পুরণ হলো প্রবাসীর স্ত্রী পুষ্পের। রাস্তায় কুড়িয়ে পেলেন এক ফুটফুটে ছেলে নবজাতক। যে আলোকিত করলো পুষ্পের ঘর।

প্রতিদিনের মতো রোববার ভোরে প্রাতঃভ্রমণে বের হন মানিকগঞ্জের সদর উপজেলার দিঘী ইউনিয়নের কাগজীনগর গ্রামের সৌদি প্রবাসী নিজাম উদ্দিনের স্ত্রী পুস্প বেগম। সঙ্গে ছিলেন আরও দুই নারী। গ্রামের মেঠো পথ দিয়ে হাঁটার সময় পাশের বাঁশঝাড়ে তারা শুনতে পান এক নবজাতকের কান্নার আওয়াজ। সাহস করে এগিয়ে গিয়ে দেখতে পান কাপড়ে মোড়ানো এক সদ্যনবজাতকে। নবজাতকের স্বজনদের দেখতে না পেয়ে মাতৃস্নেহে বুকে তুলে নেন তিনি।

- Advertisement -

পুস্প বেগম জানান, তার দুই মেয়ে। বড় মেয়ে মুক্তাকে (২৩) বিয়ে দিয়েছেন। ছোট মেয়ে স্বপ্না আক্তার (১৪) এসএসসি পরিক্ষার্থী। একটি ছেলে সন্তানের খুবই শখ ছিলো তার। কুড়িয়ে পাওয়া এই ছেলে শিশুকে তিনি পেয়ে মহাখুশি। ভিডিও কলে স্বামীকেও নবজাতকটি দেখিয়েছেন। তিনিও অনেক খুশি হয়েছেন।

পুষ্প জানান,কেউ যদি দাবি না করেন তাহলে তিনি সন্তানের মর্যাদা দিয়ে লালন-পালন করতে আগ্রহী। তিনি ওই নবজাতকের নাম রেখেছেন আল-আমিন।

এদিকে রাস্তায় নবজাতক কুড়িয়ে পাওয়ার খবরে এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। নবজাতকের মা কে তার স্বজনরাই বা কারা এটা খোঁজার চেষ্টা করছেন স্থানীয়রা। শিশুটিকে এক নজর দেখতে রোববার দিনভর পুষ্প বেগমের বাড়িতে লোকজনের ভীর লেগেই ছিল।

অনেকই বাহাবা দিচ্ছে পুষ্প বেগমকে তার সাহসিকতার জন্য। কারণ সঠিক সময় যদি শিশুটি উদ্ধার করা না যেতো তাহলে হয় তো শিশুটি শিয়াল কুকুরে খাবারের পরিণত হতো।

স্থানীয় ইউপি সদস্য ফুল চাঁন মিয়া জানান, রাস্তার পাশ থেকে নবজাতক কুড়িয়ে পাওয়ার ঘটনা পুষ্প বেগম তাকে জানিয়েছেন। তিনি শিশুটিকে দেখেছেন। বিষয়টি চেয়ারম্যান ও স্থানীয় প্রশাসনকে তিনি অবগত করেছেন।পুষ্প বেগম যাতে মায়ের মমতায় আদর স্নেহ দিয়ে শিশুটি আইনগতভাবে লালন-পালন করতে পারেন সে ব্যবস্থাও করা হবে।

এদিকে মানিকগঞ্জ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রকিবুজ্জামান জানান সদর উপজেলার দিঘী ইউনিয়নের কাগজীনগর গ্রামে নবজাতকে কুড়িয়ে পাওয়ার সংবাদ তিনি শুনেছেন। সঠিক সময় নবজাতককে উদ্ধার করায় তিনি পুষ্প বেগমকে ধন্যবাদ দেন। সেই সাথে বলেন কেউ যদি এই নবজাতকের দাবি নিয়ে আসেন তাহলে আদালতের মাধ্যমে নবজাতকটিকে হস্তান্তর করা হবে। এর আগ পর্যন্ত ওই নবজাতকটি নিজাম উদ্দিনের স্ত্রী পুস্প বেগমের কাছে থাকবে বলে জানান।

- Advertisement -