শ্রীলঙ্কার প্রধানমন্ত্রী হলেন রনিল বিক্রমাসিংহে

শ্রীলঙ্কার প্রধানমন্ত্রী হলেন রনিল বিক্রমাসিংহে
শ্রীলঙ্কার প্রধানমন্ত্রী রনিল বিক্রমাসিংহে - ফাইল ছবি

ষষ্ঠবারের মতো রনিল বিক্রমাসিংহে শ্রীলঙ্কার প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিয়েছেন। যদিও প্রবীণ এই রাজনীতিবিদ কখনো শেষ করতে পারেননি তার পুরো মেয়াদ। গতকাল বৃহস্পতিবার (১২ মে) প্রেসিডেন্ট কার্যালয়ে এক অনুষ্ঠানে প্রেসিডেন্ট গোতাবায়া রাজাপাকসের কাছ থেকে ৭৩ বছর বয়সী বিক্রমাসিংহে শপথ গ্রহণ করেন।

এর আগে পঙ্গু অর্থনৈতিক সংকটের মধ্য দিয়ে যাওয়া দক্ষিণ এশীয় দ্বীপরাষ্ট্রটিতে তিনি ঐক্যের শাসন পরিচালনা করতে সম্মত হন।

তামিল সংসদ সদস্য ধর্মলিঙ্গম সিথাদথান বার্তা সংস্থা এএফপিকে বলেন, এটি একটি ঐতিহাসিক ঘটনা। এটা আমাদের দেশের উত্তাল পরিস্থিতি তুলে ধরে।

রানিল বিক্রমাসিংহে ইউনাইটেড ন্যাশনাল পার্টির সংসদীয় প্রতিনিধি। সাবেক এই আইনজীবী একটি রাজনৈতিক পরিবারের সদস্য। তার চাচা জুনিয়াস জয়বর্ধনে এক দশকেরও বেশি সময় ধরে শ্রীলঙ্কার প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। ১৯৯৩ সালে তৎকালীন প্রেসিডেন্ট রণসিংহ প্রেমাদাসা বোমা হামলায় নিহত হওয়ার পর রনিল বিক্রমাসিংহে প্রথমবার প্রধানমন্ত্রী নিযুক্ত হয়েছিলেন। তার প্রথম মেয়াদ এক বছরের কিছু বেশি সময় স্থায়ী হয়েছিল।

প্রসঙ্গত, গত সোমবার (৯ মে) প্রেসিডেন্ট গোতাবায়ার বড় ভাই ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী মাহিন্দা রাজাপাকসে দেশটিতে মারাত্মক সহিংসতার মধ্যে পদত্যাগ করেন। শ্রীলঙ্কার সাধারণ মানুষ দেশটিতে ক্রমবর্ধমান সংকটের জন্য গোতাবায়া রাজাপাকসে এবং তার পরিবারকে দায়ী করছেন। দেশটিতে রান্নার গ্যাস, জ্বালানি ও ওষুধসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসের ব্যাপক ঘাটতি দেখা দিয়েছে।

এদিকে, অব্যাহত বিক্ষোভের মধ্যে পুলিশ ও সশস্ত্র বাহিনীকে জনসাধারণের জীবন ও সম্পদের জন্য হুমকি সৃষ্টিকারীদের গুলি করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এরপর সাঁজোয়া যানবাহনে সৈন্যরা বাণিজ্যিক রাজধানী কলম্বোর রাস্তায় টহল দিতে দেখা গেছে।