মেয়র ও ডিএমপি কমিশনারের কথায় আশ্বস্ত হলেন না শিক্ষার্থীরা

ছবিঃ সংগৃহীত

সুপ্রভাত পরিবহনের বাসচাপায় বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব প্রফেশনালসের (বিইউপি) শিক্ষার্থী আবরার আহম্মেদ চৌধুরী নিহত হওয়ার ঘটনায় দ্বিতীয় দিনের মতো রাস্তা অবরোধ কর্মসূচি পালন করছেন শিক্ষার্থীরা।

ফলে বুধবারও (২০ মার্চ) সম্পূর্ণভাবে রামপুরা ও উত্তরা রোডে যানচলাচল বন্ধ রয়েছে। আর এতে যাত্রীদের পড়তে হয়েছে ভোগান্তিতে। আর এই অচল অবস্থার অবসান ঘটাতে ঘটনাস্থলে হাজির হন ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র আতিকুল ইসলাম ও ডিএমপি কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া। কিন্তু এই দুজনের শত চেষ্টা এবং নিঃশর্তভাবে দাবি মেনে নেওয়ার বিষয়ে আশ্বস্ত করা হলেও কথা শোনেনি শিক্ষার্থীরা।

এ সময় শিক্ষার্থীরা বলতে থাকেন, দ্রুত দাবি বাস্তবায়ন করা না হলে তারা রাস্তা ছেড়ে যাবেন না।

ছবিঃ সংগ্রহ

বুধবার (২০ মার্চ) যমুনা ফিউচার পার্কের সামনে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের বোঝাতে আসেন ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র আতিকুল ইসলাম ও ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি) কমিশনার মো. আছাদুজ্জামান মিয়া।

এ সময় ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র আতিকুল ইসলাম শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে বলেন, ‘তোমাদের দাবিগুলোর মধ্যে একটি বাস্তবায়নের জন্য আজ এখানে ফুটওভার ব্রিজের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করা হলো। দ্রুততম সময়ের মধ্যে এটা বাস্তবায়ন করা হবে।’

তিনি বলেন, ‘তোমাদের সব যৌক্তিক দাবি মেনে নেওয়া হবে। বাস স্টপেজ ছাড়া কোনো বাস থামবে না। তোমাদের সমন্বয়ে আমরা প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধি নিয়ে নিয়মিত বসে সড়কে শৃঙ্খলা ফেরাতে করণীয় এবং আপডেট সম্পর্কে জানানো হবে। তোমাদের মতো নতুন প্রজন্মকে নিয়ে আমরা সমস্ত সমস্যা মোকাবেলা করে সড়কে শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনব।’

এ সময় মেয়রের কথার বিপরীতে শিক্ষার্থীরা এক সঙ্গে বলে ওঠেন, ‘আমাদের দাবি বাস্তবায়ন না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চলবে। কোনো আশ্বাস আমরা আর শুনতে চাই না। আমাদের দাবি বাস্তবায়ন হয়েছে, এমনটিই দেখতে চাই। যখন আমাদের দাবি পূরণ হবে, তখন আমরা আন্দোলন ছেড়ে শ্রেণিকক্ষে ফিরে যাব।’

এ সময় শিক্ষার্থীরা ‘বিচার চাই, উই ওয়ান্ট জাস্টিস, আমাদের দাবি মানতে হবে’ ইত্যাদি বলে স্লোগান দিতে থাকেন।

ছবিঃ সংগ্রহ

অন্যদিকে ডিএমপি কমিশনারও বিভিন্নভাবে শিক্ষার্থীদের আশ্বস্ত করে আন্দোলন ছেড়ে চলে যাওয়ার জন্য অনুরোধ করেন৷ কিন্তু তার কোনো কথাই শোনেনি শিক্ষার্থীরা।

এর আগে রাজধানীর যমুনা ফিউচার পার্কের সামনে বাসের চাপায় নিহত বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব প্রফেশনালসের (বিইউপি) শিক্ষার্থী আবরার আহমেদ চৌধুরীর স্মরণে তার নামে ফুটওভার ব্রিজের ভিত্তিপ্রস্তর উদ্বোধন করেন ডিএনসিসি মেয়র ও ডিএমপি কমিশনার।

প্রসঙ্গত, মঙ্গলবার (১৯ মার্চ) সকাল ৭টার দিকে ডিএনসিসির আওতাধীন প্রগতি সরণি এলাকায় সুপ্রভাত (ঢাকা মেট্রো-ব-১১-৪১৩৫) বাসের চাপায় বিইউপির শিক্ষার্থী আবরার আহম্মেদ চৌধুরী মারা যান। পরে সড়ক অবরোধ করে আন্দোলন শুরু করেন শিক্ষার্থীরা। এ সময় তারা আট দফা দাবি ঘোষণা করেন।