উবারে চড়ে প্রাণ গেল ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রীর, চালককে খুঁজছে পুলিশ

ছবি: লাবণ্য’র ফেসবুক থেকে নেয়া

রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালের সামনে মোটরসাইকেলে কাভার্ডভ্যানের ধাক্কায় এক বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রী নিহত হয়েছেন। নিহত ফাহমিদা হক লাবণ্য (২১) ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ে কম্পিউটার সায়েন্সে তৃতীয় বর্ষে পড়তেন।

বৃহস্পতিবার (২৫ এপ্রিল) বেলা ১২টার দিকে জাতীয় হৃদরোগ ইন্সটিটিউট ও হাসপাতালের পাশের রাস্তায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। সে অ্যাপসভিত্তিক রাইড শেয়ারিং অ্যাপস উবার মোটোর যাত্রী ছিল বলে জানো গেছে। 

ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) তেজগাঁও বিভাগের উপ-কমিশনার (ডিসি) বিপ্লব কুমার সরকার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, ‘লোক মুখে শোনা যাচ্ছে লাবণ্য শ্যামলী থেকে বাইকে রাইড শেয়ারিং সেবা মাধ্যমে ইউনিভার্সিটির উদ্দেশে যাওয়ার সময় একটি পিকআপ ভ্যানের সাথে ধাক্কা লেগে এ দুর্ঘটনা ঘটে। পরে তাকে পথচারীরা উদ্ধার করে সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল নিয়ে যায়। সেখানে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।’


ছবি: লাবণ্য’র ফেসবুক থেকে নেয়া

তিনি আরও বলেন, ‘কীভাবে দুর্ঘটনাটি ঘটলো সেটি এখনো নিশ্চিত হওয়া যায়নি। আশেপাশে কোনো সিসিটিভি ক্যামেরাও নেই। তবে চেষ্টা করছি কোনোভাবে জানা যায় কি-না।’ 

ঘটনাটি সম্পর্কে শেরে-বাংলা নগর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) নুরুল ইসলাম বলেন, ‘হৃদরোগ ইনস্টিটিউট থেকে ৯৯৯ এ ফোন করে বলা হয়, দুর্ঘটনায় আহত দুইজন তাদের হাসপাতালে এনেছে। সেখান থেকে থানায় ফোন করা হলে আমি ঘটনাস্থলে যাই। গিয়ে আশপাশের অনেকের সঙ্গে কথা বলি। কেউই নিজ চোখে দেখেনি। মেয়েটির বাসা শ্যামলীর ৩ নম্বর রোডে। হাসপাতালে তার পরিবারের সদস্যরা উপস্থিত আছেন।’

শেরে-বাংলা নগর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) জানে আলম মুন্সি বলেন, ‘এ ঘটনায় রাইডার সুমন আহত হয়েছেন। কিন্তু পুলিশ আসার আগেই সে প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়ে হাসপাতাল থেকে চলে যায়। সে তার প্রেসক্রিপশনটিও নেয়নি। তাকে ফোন দিলে তার ফোনটিও বন্ধ পাওয়া যাচ্ছে।’