চুরি করতে গিয়ে বহুতল ভবন থেকে পড়ে কিশোরের মৃত্যু

চুরি করতে গিয়ে বহুতল ভবন থেকে পড়ে কিশোরের মৃত্যু
প্রতীকী ছবি

রাজধানীর ডেমরা মধ্য সানারপাড় এলাকায় বহুতল ভবনের গ্রীল বেয়ে চুরি করার সময় ধাওয়া খেয়ে নিচে পড়ে মৃত্যু হয়েছে রায়হান (১৮) নামে এক কিশোরের।

গতকাল মঙ্গলবার (৫ জুলাই) সকাল ১০টার দিকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

মধ্য সানারপাড় এলাকার স্থানীয় বাড়ির ভাড়াটিয়া মামুনুর রশীদ জানান, মধ্য সানারপাড় প্রেসিডেন্ট ক্যাফের পাশে একটি বাড়ির ৩ তলাতে তিনি থাকেন। মধ্য রাতে যখন তিনি ঘুমিয়ে ছিলেন এমন সময় চোর চোর বলে চিৎকার শুনতে পান। তখন বিছানায় তার মোবাইল ফোনটিও আর খুঁজে পাননি তিনি। পরে বাইরে গিয়ে দেখেন দুই ভবনের পাশে একটি নর্দমায় পড়ে রয়েছে ওই কিশোর। তখন ট্রিপল নাইনের মাধ্যমে থানায় খবর দেন। পরে পুলিশ গিয়ে তাকে উদ্ধার করে। পাশে মামুনের মোবাইল সহ আরও একটি মোবাইল ফোন পড়ে থাকতে দেখেন।

এদিকে, ডেমরা থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মাঈনুল হোসেন জানান, ভোর রাত ৪টার দিকে মধ্য সানারপাড় এলাকায় গিয়ে দুই ভবনের মাঝে একটি নর্দমা থেকে মুমূর্ষু ওই কিশোরকে উদ্ধার করা হয়। তখন তার নাম পরিচয় কিছুই জানা যাচ্ছিলো না। পরে তাকে হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

তিনি জানান, প্রাথমিকভাবে জানা গেছে, চুরি করার সময় ধাওয়া খেয়ে পালাতে গিয়ে ভবন থেকে পড়ে তার মৃত্যু হয়েছে। তবে বিস্তারিত তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।

এদিকে নিহতের মা রিনা বেগম জানান, রায়হানের বাবা বাবুল মিয়া বহু বছর আগে তাদের ছেড়ে চলে গেছে। এরপর তিনিও আরেকটি বিয়ে করে অন্যত্র থাকেন। রায়হান সানারপাড় তার ফুফু সাহিদা বেগমের বাসায় থাকতো। তেমন কিছুই করতো না সে। ফুফা বাসেদ ভুইয়ার দেখাশোনা করতো। সকালে তাদের মাধ্যমেই মা রিনা বেগম ছেলের খবর শুনতে পান। পরে হাসপাতালে গিয়ে ছেলেকে দেখতে পান। কীভাবে তার মৃত্যু হয়েছে তা না জানলেও ছেলেকে হত্যা করা হয়েছে বলে সন্দেহ তার।

তাদের বাড়ি বরিশাল মেহেন্দিগঞ্জ উপজেলায়। দুই ভাইয়ের মধ্যে বড় রায়হান।