Home জাতীয় ৭৮ উপজেলায় নিরুত্তাপ ভোটের পর চলছে গণনা

৭৮ উপজেলায় নিরুত্তাপ ভোটের পর চলছে গণনা

- Advertisement -

রাজনীতির মাঠের প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী ভোটে না থাকায় অনেকটা নিরুত্তাপভাবে সম্পন্ন হয়েছে ৭৮ উপজেলার ভোটগ্রহণ। রবিবার সকাল আটটা থেকে বিকাল চারটা পর্যন্ত বিরামহীনভাবে অনুষ্ঠিত হয় ভোট। এখন চলছে গণনা। সন্ধ্যা নাগাদ ফলাফল আসতে শুরু করবে।

প্রথম ধাপের ভোটে কোথাও বড় ধরনের সহিংসতার খবর পাওয়া যায়নি। তবে দেশের বিভিন্ন স্থানে বিচ্ছিন্ন সংঘর্ষ, ব্যালেট ছিনতাই, জাল ভোটের অভিযোগ পাওয়া গেছে। বেশ কয়েকটি কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ স্থগিত করেছে নির্বাচন কমিশন। এছাড়া ভোটারদের আশানুরূপ উপস্থিতি ছিল না।

- Advertisement -

গত ৩০ ডিসেম্বরের নির্বাচনে নজিরবিহীন কারচুপি হয়েছে এমন অভিযোগ এনে এবারের উপজেলা নির্বাচন বর্জন করে বিএনপিসহ বিরোধী দলগুলো। এতে উপজেলা নির্বাচন অনেকটা অনাগ্রহের সৃষ্টি করে ভোটারদের মধ্যে। তবে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের নেতারা বিভিন্ন স্থানে বিদ্রোহী প্রার্থী হওয়া এবং বিএনপির কোনো কোনো নেতা স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে ভোটের মাঠে থাকায় নির্বাচনে কিছুটা প্রতিদ্বন্দ্বিতা হচ্ছে। যদিও প্রায় ১৫টি উপজেলায় বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন ক্ষমতাসীন দল থেকে।

সকাল থেকে ৭৮ উপজেলায় ভোটগ্রহণ শান্তিপূর্ণ পরিবেশে  হলেও অধিকাংশ কেন্দ্রে ভোটার উপস্থিতি ছিল খুবই কম। ভোটার উপস্থিতির চেয়ে কাস্টিং বেশি হওয়ায় সিরাজগঞ্জে শাহজাদপুরের দুটি কেন্দ্রের ভোটগ্রহণ স্থগিত করেছেন জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা।

ব্যালট ছিনতাইসহ অনিয়মের ঘটনায় কুড়িগ্রামের পাঁচ উপজেলার ছয়টি কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ স্থগিত করেছে নির্বাচন কমিশন।

হবিগঞ্জের আজমিরীগঞ্জ উপজেলার তিনটি কেন্দ্রে ব্যালট ছিনতাই ও জাল ভোট দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। এর মধ্যে একটি কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ স্থগিত করে দেয়া হয়েছে। আর দুটি কেন্দ্রে সাময়িকভাবে ভোটগ্রহণ বন্ধ থাকলেও পরে চালু হয়।

সুনামগঞ্জের তাহিরপুরে তিনটি কেন্দ্রে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে অন্তত ৩০ জন আহত হয়েছেন।  

ভোটগ্রহণে অনিয়মের দায়ে লালমনিরহাটের কালীগঞ্জ উপজেলায় রেজাউল করিম নামে এক প্রিসাইডিং অফিসারকে প্রত্যাহার করা হয়েছে। তিনি বানিনগর উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রের প্রিসাইডিং অফিসার ছিলেন।

জাল ভোট দেয়ার অভিযোগে কালীগঞ্জ উপজেলার তুষভান্ডার ইউনিয়ন পরিষদের ৫নং ওয়ার্ড সদস্য আবু হানিফ সাগরকে আটক করেছে পুলিশ।

জয়পুরহাটে পাঁচটি উপজেলায় ভোটারের উপস্থিতি বেশ কম লক্ষ্য করা গেছে। কেন্দ্রগুলোতে বিপুল সংখ্যক আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য উপস্থিত থাকলেও নেই চোখে পড়ার মতো ভোটার।

কড়া নিরাপত্তার মধ্যে দিয়ে নাটোরের সিংড়া, গুরুদাসপুর, বড়াইগ্রাম, লালপুর ও বাগাতিপাড়া উপজেলার ৪৩৭টি কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ হয়েছে।

- Advertisement -